Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২০ , ২১ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.0/5 (1 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ১১-২১-২০১২

আগামী জুলাইয়ের মধ্যে বিদ্যুৎ দেবে ভারত


	আগামী জুলাইয়ের মধ্যে বিদ্যুৎ দেবে ভারত

ভারত সরকারের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ পাঁচশ’ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আগামী জুলাই মাসের মধ্যে পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এনামুল হক।
মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে সাধনা হালদারের এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ তথ্য জানান। প্রতিমন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু প্রশ্নের জবাব দেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রকল্পের কাজের বর্তমান ধারা অব্যাহত থাকলে আগামী জুলাই-২০১৩ এর মধ্যে ভারত থেকে ৫০০ কেভি বিদ্যুৎ আমদানি সম্ভব হবে।
প্রতিমন্ত্রী আরো জানান, ভারত থেকে বিদ্যুৎ আমদানির জন্য ভারতের বহরমপুর ও বাংলাদেশের ভেড়ামারা পর্যন্ত চারশ’ কেভি সঞ্চালন লাইন ও ভেড়ামারায় উপকেন্দ্র নির্মাণ আগামী জুলাই মাসের মধ্যে শেষ হবে।
লাইনের অংশে ৭২ শতাংশ ও উপকেন্দ্র অংশে ৪৭ দশমিক ৮৭ শতাংশ অগ্রগতি হয়েছে। ভারতের অংশের কাজও সমান্তরালভাবে চালানো হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি।
এ কে এম রহমতুল্লাহর প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়াতে আরো ৩ হাজার ৩৯৪ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ২২টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের দরপত্র প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। নির্মাণাধীন আছে ৫ হাজার ৪৮ মেগাওয়াটের আরো ২৮টি কেন্দ্র। এগুলো ২০১৬ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে বানিজ্যিকভাবে উৎপাদনে আসবে।
তিনি আরো জানান, বর্তমান সরকারের সময় এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৫৯৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৫১টি নতুন বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাণিজ্যিকভাবে চালু হয়েছে। এতে বিদ্যুতের উৎপাদন ১২ শতাংশ বেড়েছে। তবে এ সময় চুক্তি হয়েছে ৭ হাজার ৬৪৯ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৫৭টি কেন্দ্রের।
নাছিমুল আলম চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে এনামুল হক জানান, ২০১২ সালে তারা মোট ৭ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে ইতিমধ্যে ৬ হাজার ৩৫০ মেগাওয়াট উৎপাদন করেছেন।
এরপরেও বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির কারণ ব্যাখ্যা করে মন্ত্রী জানান, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের আওতায় বাল্ক মূল্য হার বৃদ্ধি, জ্বালানি মূল্যহার বৃদ্ধি, উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি, বিতরণ লাইন নির্মাণ খরচ বৃদ্ধি ও সংস্থার প্রশাসক-পরিচালনা ব্যয় বৃদ্ধির কারণে খুচরা পর্যায়ে মূল্যহার বৃদ্ধি করা হয়েছে।
নিলোফার চৌধুরী মনির প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, মহাজোট সরকারের আমলে বিদ্যুতের দাম ৬ দফা বাড়ানো হয়েছে। সর্বশেষ বাড়ানো হয় গত সেপ্টেম্বরে।
রাশেদা বেগম হীরার প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী জানান, চাহিদার তুলনায় বিদ্যুৎ উৎপাদন ঘাটতি থাকায় কোনো কোনো ক্ষেত্রে লোডশেডিং করা হচ্ছে। তবে বর্তমানে উৎপাদন বৃদ্ধি ও লোড ম্যানেজমেন্ট এর মাধ্যমে লোডশেডিং সহনীয় পর্যায়ে রাখা হয়েছে। ২০১০-১১ অর্থবছরে গড় লোডশেডিং ছিলো দৈনিক ৪ ঘন্টা এবং গত অর্থবছরে (২০১১-১২) তা কমে হয় দৈনিক ২ ঘন্টা।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে