Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, বুধবার, ৮ এপ্রিল, ২০২০ , ২৫ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 2.6/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ১১-১৫-২০১২

নতুন ১০টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাব

সাব্বির নেওয়াজ



	নতুন ১০টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাব

চলতি সপ্তাহেই নতুন আরও ১০ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ-সংক্রান্ত সারসংক্ষেপ চূড়ান্ত করে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র থেকে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। বর্তমান সরকারের আমলে ১৩ মার্চ প্রথম দফায় আটটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এখন আরও ১০টি অনুমোদনের প্রক্রিয়া চূড়ান্ত প্রায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই রাজনৈতিক বিবেচনায় এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের সুপারিশ করা হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন মিললে আগামী রোববার নতুন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রজ্ঞাপন জারি হতে পারে। ১০টি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনের প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হলেও অনুমোদনকালে এর সঙ্গে আরও দু'একটি যুক্ত বা তালিকা থেকে দু'একটি বাদ পড়তে পারে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার প্রায় ১০৩টি আবেদনের মধ্য থেকে আটটি অনুমোদনের প্রস্তাব করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের বিশ্ববিদ্যালয় শাখা থেকে জানা গেছে, নতুন বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন পেতে যাওয়া আবেদনকারীদের মধ্যে রয়েছেন_ চট্টগ্রাম অঞ্চলের একজন প্রভাবশালী মন্ত্রীর স্ত্রী, বরিশাল অঞ্চলের এক প্রতিমন্ত্রীর স্ত্রী, সংসদীয় স্থায়ী কমিটির একজন সভাপতি, একজন ব্যবসায়ী নেতা, আওয়ামী লীগের একজন সাংগঠনিক সম্পাদক, একটি ব্যাংক ফাউন্ডেশনের প্রস্তাবিত কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও দেশের একটি শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়িক গ্রুপ। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, এবারে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়কে শর্ত শিথিল করে অনুমোদন 
দেওয়া হচ্ছে। যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অনুমোদন পেতে যাচ্ছে তার মধ্যে দুটি একবার নাকচ হওয়া। ১৩ মার্চ সরকার সর্বশেষ যে ৮টি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দিয়েছিল, সেখানেও এ দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাব নাকচ করা 
হয়। নাকচ হওয়া ওই দুটির একটি তাদের নামে আংশিক পরিবর্তন আনছে। এর ফলে সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সেটি 'কৃষি' বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হচ্ছে। তখন শিক্ষা মন্ত্রণালয় ১০টি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করেছিল। প্রধানমন্ত্রী সে সময় আটটির অনুমোদন দেন। 
জানা গেছে, আবেদনকারীদের প্রায় সবাই প্রভাবশালী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান হওয়ায় গতকাল শিক্ষা মন্ত্রণালয় কঠোর গোপনীয়তার মধ্যে সুপারিশমালা চূড়ান্ত করেছে। গত রাতে এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলেও শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা সচিব মুখ খুলতে চাননি। 
শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১০ অনুসারে অনুমোদন পেতে যাওয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কর্তৃপক্ষ বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনার 'সাময়িক অনুমোদন' পাবেন। ৫ বছরের মধ্যে নিজস্ব স্থায়ী ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠার পর তারা সরকার থেকে 'স্থায়ী সনদ' লাভ করবেন। সূত্র মতে, এবার ১০টি বিশ্ববিদ্যালয়কে মোট ১৬টি শর্তসাপেক্ষে সাময়িক অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে। এসব শর্তের মধ্যে রয়েছে_ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০১০ পুরোপুরি প্রতিপালন, নির্ধারিত পরিমাণ অর্থ বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে তফসিলি ব্যাংকে ফিক্সড ডিপোজিট আকারে জমা রাখা, নির্দিষ্ট ও নির্ধারিত ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম পরিচালনা, দূরশিক্ষণ পরিচালনা না করা, ইউজিসি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিধি-বিধান মেনে চলা, নির্ধারিত সংখ্যক শিক্ষক, লাইব্রেরি, গবেষণাগার ও শিক্ষা উপকরণ ও মান বজায় রাখা এবং ইউজিসির অনুমোদিত কোর্স-কারিকুলাম পরিচালনা করা। 
দেশে বর্তমানে সরকার অনুমোদিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ৬১টি। নতুন আরও ১০টি অনুমোদন দেওয়া হলে তা ৭১-এ উন্নীত হবে। '৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত বিগত আওয়ামী লীগ সরকার পাঁচ বছরে মোট ১৬টি নতুন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দিয়েছিল। এ মেয়াদে চার বছরে ১৮টির অনুমোদন দেওয়া হতে যাচ্ছে।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে