Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০ , ২৩ চৈত্র ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.2/5 (21 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)


আপডেট : ১১-০৯-২০১২

গণশুনানিতে হুমকি- ‘গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব মানি না, বাড়ালেই ধর্মঘট’


	গণশুনানিতে হুমকি- ‘গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব মানি না, বাড়ালেই ধর্মঘট’

পেট্রোবাংলার গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব মানি না। এটা অবৈধ। গ্যাসের দাম বাড়ালে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট দেয়ার হুমকি দিয়েছেন সিএনজির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ৬টি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। অন্যদিকে ভোক্তা সংরক্ষণ সংগঠনের ক্যাব-এর বিদ্যুৎ  ও জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. এম শামসুল আলম পেট্রোবাংলার প্রায় ৩২ শতাংশ গ্যাসর দাম বৃদ্ধির প্রস্তাবের বিরোধিতা করে একে অবৈধ উল্লেখ করেছেন। একই সঙ্গে গণশুনানিতে গ্যাস বিতরণকারী কোম্পানিগুলোকে আলাদা আলাদা প্রস্তাব নিয়ে আসার দাবি করেন তিনি। অন্যথায় ক্যাব-এর পক্ষ থেকে ভবিষ্যতে গণশুনানির অনুষ্ঠান বয়কট করারও হুমকি দেন এই উপদেষ্টা। এছাড়া অবৈধ গ্যাস সংযোগের ব্যাপারে সংবাদ মাধ্যমে যে সব অভিযোগ এসেছে তা কিভাবে নিষ্পত্তি হয়েছে তা কমিশনকে পর্যালোচনার অনুরোধ করেন তিনি। গতকাল বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের মিলনায়তনে বাংলাদেশ তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশন (পেট্রোবাংলা)-এর উদ্যোগে ৭টি ক্যাটিগরিতে ভোক্তা পর্যায়ে প্রাকৃতিক গ্যাসের মূল্য হার পুনর্নির্ধারণের প্রস্তাব অনুষ্ঠানে তারা এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সংগঠনের দাবির প্রেক্ষিতে আগামী ১০ই ডিসেম্বর সকাল ১১টায় গণশুনানির ঘোষণা দেন কমিশনের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. ইমদাদুল হক। একই সঙ্গে গ্যাস বিতরণ কোম্পানিগুলোকে অবশ্যই পৃথক পৃথক প্রস্তাবের আবেদন নিয়ে গণশুনানিতে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। এর আগে চলতি মাসের ২৮শে নভেম্বরের মধ্যে কমিশনে নাম অন্তর্ভুক্তির করতে হবে তাদের। এ সময় কমিশনের সদস্য ড. সেলিম মাহমুদ ও দেলোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন। পেট্রোবাংলার পক্ষে গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রস্তাব উপস্থাপন করেন সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার আবদুল খালেক। ভোক্তা পর্যায়ে গড়ে প্রায় ৩২ শতাংশ গ্যাসের দাম বাড়ানোর কথা বলেন। এর ফলে গণপরিবহনে প্রতি কিলোমিটারে ৮ পয়সা বেড়ে যাবে বলে তিনি সাংবাদিকদের জানান। সিএনজি খাতে ৩৩ দশমিক ৩৩ শতাংশ বৃদ্ধির প্রস্তাব আনা হয়। এ খাতে বর্তমানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের মূল্য ৮৪৯ টাকা ৫০ পয়সা রয়েছে। একই ভাবে বাণিজ্যিক খাতে ৩০ দশমিক ৫৫ শতাংশ, যেখানে ২৬৮ টাকা ৯ পয়সা রয়েছে। চা-বাগানে ২০ দশমিক ৫৫ শতাংশ এবং এখানে বর্তমানে ১৬৫ টাকা ৯১ পয়সা, শিল্প খাতে ৩২ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং ১৬৫ টাকা ৯১ পয়সা আছে প্রতি ঘনমিটারে। বিদ্যুৎ খাতে ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ এবং বিদ্যমান ৭৯ টাকা ৮২ পয়সা রয়েছে, সারকারখানায় ৯ দশমিক ৭১ শতাংশ বৃদ্ধির প্রস্তাব আনা হয়, যেখানে ৭২ টাকা ৯২ পয়সা পরিশোধ করতে হচ্ছে। ১১৮ টাকা ২৬ পয়সা থেকে শতকরা ১০২ দশমিক ৯৪ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয় ক্যাপটিভ পাওয়ারে। গৃহস্থালি খাতে এখনই বাড়ছে না।  পণ্য হিসেবে প্রতি ঘনমিটার ২৫ টাকা ধরে  হিসাব করা হয়েছে। গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির যৌক্তিকতা তুলে ধরে সংস্থাটি বলছে, প্রতিবেশী দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশে গ্যাসের দাম কম, অন্যান্য জ্বালানির মূল্য এর চেয়ে বেশি। তাছাড়া ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জ্বালানি নিরাপত্তা বিধান, গ্যাসের অদক্ষ ব্যবহার রোধের কথা উল্লেখ রয়েছে। বাংলাদেশ সিএনজি ফিলিং স্টেশন অ্যান্ড কনভার্শন ওয়ার্কসপ ওনার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি জাকির হোসেন নয়ন পেট্রোবাংলার এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করে অনুষ্ঠানে বলেন, এটা অবৈধ। সরকার এর আগে রাতের অন্ধকারে গত বছরের ১৯ই সেপ্টেম্বর ২০ শতাংশ গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করেছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, গ্যাস বিতরণ কোম্পানির এমডিরা সরকারি চাকরি করে মাসে ২ থেকে ৩ লাখ টাকা বেতন নেন অথচ একজন সচিব বেতন পান তার চেয়েও কম। এছাড়া বছরে ৩-৪টি ইনসেনটিভ হিসেবে বোনাস নেন ৩ থেকে ৪ লাখ টাকা। এই টাকা জনগণের।  দাম বাড়লে জনগণের দুর্ভোগ বৃদ্ধি পাবে। কমিশন সরকারের হয়ে কাজ করে তার নিরপেক্ষতা হারাচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে তারা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটে যাবেন। তাদের ৬টি সংগঠন এসোসিয়েশন অব বাস কোম্পানিজের (এবিসি), ঢাকা বাস-ট্রাক ওনার্স গ্রুপ, ট্যাক্সি ক্যাব এসোসিয়েশন, ফোর স্টোক সিএনজি অটোরিকশা অ্যান্ড থ্রি হুইলার মোটরবাইক ওনার্স এসোসিয়েশন এবং ঢাকা মহানগর সিএনজি অটোরিকশা এই কর্মসূচি পালন করবে। গ্যাস বিতরণকারী সংস্থাগুলো হলো তিতাস, বাখরাবাদ, জালালাবাদ, পশ্চিাঞ্চল ও কর্ণফুলী।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে