Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

ইউনিজয়
ফনেটিক
English
টরন্টো, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ , ১০ ফাল্গুন ১৪২৬

গড় রেটিং: 3.3/5 (18 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

আপডেট : ১০-২৪-২০১১

তবু ?বৃষ্টিভেজা? হয়ে থাকল ক্রিকেট

তবু ?বৃষ্টিভেজা? হয়ে থাকল ক্রিকেট
চট্টগ্রামে দারুণ সময় কাটছে তাঁদের। মাঠের যা অবস্থা, সকালে একবার ওখানটায় ঘুরে আসা কেবলই আনুষ্ঠানিকতা। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে পা রেখেই বলে দেওয়া যাচ্ছে, ?দিনের খেলা বাতিল।? এরপর সারা দিন ফুরফুরে মেজাজে ঘুরে বেড়াও।
বলা হচ্ছে, বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দুই আম্পায়ার কুমারা ধর্মসেনা ও নাইজেল লং এবং ম্যাচ রেফারি অ্যান্ডি পাইক্রফটের কথা। কাল সকালে মাঠে ঢুঁ মেরেই দুই আম্পায়ার হোটেল হয়ে চলে গেছেন ভাটিয়ারিতে। উদ্দেশ্য, জাহাজের পরিত্যক্ত জিনিসপত্র দেখা, পছন্দ হয়ে গেলে কিছু কেনাও। ধর্মসেনা খালি হাতে ফিরলেও নাইজেল লং কিনে এনেছেন জাহাজের পুরোনো একটা কম্পাস। পাইক্রফটের আকর্ষণ ছিল রাগবিতে। না, চট্টগ্রামে তাঁর সৌজন্যে রাগবির আয়োজন হয়নি। নিউজিল্যান্ড-ফ্রান্সের মধ্যে রাগবি বিশ্বকাপের ফাইনাল ছিল কাল। হোটেলে বসে ?বৃষ্টিভেজা? দিনের আনন্দটা টেলিভিশনে রাগবি দেখেই নিয়েছেন ম্যাচ রেফারি।
?বৃষ্টিভেজা?! চট্টগ্রামের মানুষের ঘোরতর আপত্তি থাকবে শব্দটাতে। সকালে সামান্য ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হলেও এর পর থেকে সারা দিনই মাথার ওপর গনগনে সূর্য। বৃষ্টিতে ভিজল কই শহর? দিনের তাপমাত্রা বরং কখনো কখনো ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসও ছুঁয়েছে। মাঠে গিয়ে কেউ যদি ভিজে থাকেনও, সেটা ঘামে। বৃষ্টিতে নয়। এমন সুন্দর একটা দিনকে সামনে রেখে কিনা সকাল ১০টার সময়ই আম্পায়াররা ঘোষণা দিয়ে দিলেন?তৃতীয় দিনের খেলাও বাতিল! কারণটা পরিষ্কার। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন না থাকলেও কর্দমাক্ত মাঠ অন্তত ক্রিকেটীয় দৃষ্টিকোণ থেকে চট্টগ্রাম টেস্টটাকে কাল পর্যন্ত বৃষ্টিভেজাই রেখেছে।
পর পর দুই দিন প্রখর সূর্য থাকার পরও খেলা হয়নি একটি বলও। ক্রিকেটের অনেক রহস্যের মধ্যে সম্ভবত এটাও একটা রহস্য। কিন্তু মাথার ওপরে সূর্য থাকার পরও কেন আম্পায়াররা আরেকটু অপেক্ষা করলেন না? কেন দিনের বাকিটা সময় না দেখেই খেলা বাতিলের সিদ্ধান্ত? চেষ্টা করেও আইসিসির আচরণবিধির কারণে এসব প্রশ্নের উত্তর ম্যাচ কর্মকর্তাদের মুখ থেকে শোনা যায়নি।
উত্তর অবশ্য মাঠে দাঁড়ালেই পাওয়া গেছে। পরশু রাত এবং কাল সকালে বৃষ্টি হয়েছে। কাভারের নিচে থাকায় নতুন করে মাঠ নষ্ট না হলেও আগের ক্ষতচিহ্নগুলো শুকানোর সুযোগ পায়নি। এরপর সারা দিন রোদ পাওয়ার পরও জায়গায় জায়গায় কাদা কাদা ভাবটা রয়েই গেছে। এমন মাঠে কাদায় গা ভরিয়ে ফুটবল ম্যাচ খেলা যেতে পারে, ক্রিকেটের অনুশীলনও নয়।
দুপুরের আগে বোলিং-ফিল্ডিং কোচের সঙ্গে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বে ৬-৭ জন ক্রিকেটার মাঠে এসেছিলেন অনুশীলনের জন্য। কিন্তু মাঠে নেমেই কাদার কারণে উঠে যেতে হয়েছে তাঁদের। অনুশীলন শেষ পর্যন্ত হলো ইনডোরে। হোটেলে ফেরার আগে আবহাওয়ার কাছে অসহায়ত্বের কথা স্বীকার করে গেলেন মুশফিক, ?খেলতে পারলে ভালো হতো। তবে আবহাওয়ার ওপর তো কারও নিয়ন্ত্রণ নেই।? টেস্টের এখনো দুই দিন বাকি। আজ ও কাল খেলা হলে কী ভবিষ্যৎ দেখছেন এই টেস্টের? ফলাফলের সম্ভাবনা তো প্রায় শেষই হয়ে গেছে। মুশফিক অবশ্য কালই অতটা ভবিষ্যৎমুখী হলেন না, ?ওদের দুই ইনিংসে অলআউট করার চিন্তা এখনই করছি না। আগে খেলা শুরু হোক। আর আমাদেরও প্রথম ইনিংসে আরও রান করতে হবে।? ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল ম্যাচের ভবিষ্যৎ নিয়ে কী ভাবছে, সেটা অবশ্য জানা যায়নি। কাল মাঠমুখোই হয়নি দলের কেউই।
আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী আজ বৃষ্টির আশঙ্কা নেই চট্টগ্রামে। তবে এ প্রতিবেদন যখন লেখা হচ্ছে, তখনো কালকের দিনেরই অনেকটা বাকি। মাঠকর্মী, কিউরেটর থেকে শুরু করে দুই দল এবং বোর্ড কর্মকর্তারাও আড় চোখে তাকিয়ে ওপরের দিকে। আকাশ ফুটো হয়ে কয়েক ফোঁটা বৃষ্টিই যে নষ্ট করে দিতে পারে চট্টগ্রাম টেস্টের বাকি ভবিষ্যৎটাও!

ফুটবল

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে