logo

‘শেখের বেটি ১০ ট্যাকায় চাউল খোওয়াইবে, দুঃখের দিন শ্যাষ’

‘শেখের বেটি ১০ ট্যাকায় চাউল খোওয়াইবে, দুঃখের দিন শ্যাষ’

কুড়িগ্রাম, ০৭ সেপ্টেম্বর- দশ টাকা কেজি দরে চাল পেয়ে খুশির সঙ্গে সঙ্গে নিজেদের দুঃখের দিনের ইতি হয়েছে বলে মনে করছেন কুড়িগ্রামবাসী।

বুধবার খাদ্য নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতায় চিলমারীতে রেশন কার্ডধারী ৬৪ জন উপকারভোগীর হাতে ৩০ কেজি করে চাল তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

চাল পেয়ে ৬৫ বছর বয়সী ফাতেমা বেগম বলেন,“শেখের বেটি হাসিনা হামাক ১০ ট্যাকায় চাউল খোওয়াইবে। এটা হামরা কল্পনাতেও আনবার পাই নাই। হামার দুঃখের দিন তো শ্যাষ হয়া গেইল বাহে।”

জোড়গাছ মাঝিপাড়ার অধিবাসী মালতি রাণী জানান, তার স্বামী ভবেশ চন্দ্র দাস জেলে। জমি-জমা নেই। মাছ ধরতে পারলে খাবার জোটে, না হলে উপোস। ১০ টাকার রেশন কার্ড পেয়ে আনন্দে উদ্বেলিত তিনি।

দুই বছর আগে স্বামীকে হারিয়েছেন রূপভান। সন্তানদের লালন-পালন করতে কাজ নেন চাতালে। সে কাজও নেই এখন।

এ রকম দুঃখের দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এ রেশন কার্ড পেয়ে খুবই খুশি বলে জানান তিনি।

রূপভান বলেন, আল্লাহ যেন তাকে (শেখ হাসিনা) দীর্ঘজীবী করেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী সকাল ১১টায় সভাস্থলে উপস্থিত হন। নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্যদিয়ে এক কিলোমিটার দূরে সভাস্থলে আসেন তিনি।

এ সময় পথে পথে হাজার হাজার মানুষ তাকে এক নজর দেখার জন্য ভিড় জমায়। থানাহাট এ ইউ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সভায় আমন্ত্রিত অতিথি ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেয়নি নিরাপত্তাকর্মীরা।

প্রচণ্ড রোদ উপেক্ষা করে মাইকে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শুনতে পেলেও এক নজর দেখতে না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন তারা।

আর/১০:১৪/০৭ সেপ্টেম্বর