logo

ঘাতককে দেখেই ডুকরে কেঁদে ওঠেন রিশার মা

ঘাতককে দেখেই ডুকরে কেঁদে ওঠেন রিশার মা

ঢাকা, ০১ সেপ্টেম্বর- আসামির কাঠগড়ায় ঘাতক ওবায়দুলকে দেখে অঝোরে কাঁদলেন উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের শিক্ষার্থী সুরাইয়া আক্তার রিশার মা তানিয়া হোসেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে যখন ওবায়দুলকে আদালতে হাজির করা হয়, তখন রিশার মা তানিয়া হোসেন ও বাবা রমজান হোসেন সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

ওবায়দুল খানকে যখন আদালতে আসামির কাঠগড়ায় তোলা হয়, তখন রিশার মাকেও বাদীর কাঠগড়ায় নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় মেয়ের ঘাতক ওবায়দুলকে দেখে ডুকরে কেঁদে ওঠেন তিনি। কোনওভাবেই তাকে থামানো যাচ্ছিল না। যতক্ষণ শুনানি চলেছে, ততক্ষণই তিনি কেঁদেছেন। এ সময় ওবায়দুল ছিল ভাবলেশহীন।

শুনানি শেষে রিশার মা তানিয়া হোসেন বলেন, ‘ওবায়দুলকে দেখে মেয়ে হারানোর কষ্ট যেন বেড়ে যায়। আমি চাই, যে আমার কোল খালি করে দিয়েছে, তার মতো জঘন্য অপরাধীর যেন ফাঁসি হয়। আমাদের মন তো ঠাণ্ডা হয় না।’

গত ২৪ আগস্ট টেইলার্সের কর্মচারী ওবায়দুল উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের শিক্ষার্থী সুরাইয়া আখতার রিশাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৮ আগস্ট রিশা মারা যায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে ওবায়দুলকে আদালতে হাজির করে দশ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ। আদালত শুনানি শেষে ৬দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আর/১০:১৪/০১ সেপ্টেম্বর