logo

এটা কিন্তু টেডি বিয়ার নয়, মুরগী!

এটা কিন্তু টেডি বিয়ার নয়, মুরগী!

মনে হয় একটা খেনলা টেডি বিয়ার যেন, নরম পালকে মোড়া একদম নরম তুলতুলে। দেখলেই একটু ধরে দিতে ইচ্ছে করবেই। ধবধবে সাদা কিংবা কুচকুচে কালো। হাত বোলালে মিলবে রেশমের অনুভূতি। বিচিত্র এই প্রাণী আসলে এক বিশেষ প্রকার মুরগি। রেশমের মতো পালকের কারণে এর নামও ‘সিল্কি’ কিংবা ‘সিল্ক চিকেন’।

এতই নরম এই মুরগির পালক যে, তার সাহায্যে এরা উড়তে পারে না। পানিতে ভিজেও যায় এই রেশমি পালক। দেখতে যেমন আলাদা, সিল্কির স্বভাবও সাধারণ মুরগির থেকে ভিন্ন ধরনের। অন্য মুরগির মতো এরা রগচটা তো নয়ই, বরং অতি শান্ত।

মানুষের সাথে তাদের সম্পর্কও খুব বন্ধুত্বপূর্ণ। পোষ্য হিসেবে ঘরে রাখার জন্য এরা আদর্শ। এদের আরেক বৈশিষ্ট্য হলো মাতৃত্বের গণ। সন্তান প্রতিপালনে এরা বিশেষভাবে দক্ষ। তবে এ ধরনের মুরগি ডিম দেয় কম। তবু সিল্কি যারা পোষেণ, তা সিল্কির কাছ থেকে পাওয়া ভালোবাসার লোভেই।
আমাদের অচেনা হলেও এই মুরগির ইতিহাস অনেক দিনের। বিজ্ঞানীরা জানান, খ্রিষ্টের জন্মের ২০০ বছরেরও আগে চীনে এই মুরগি পাওয়া যায়। তারপর বাকি দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। সিল্কির প্রথম উল্লেখ মেলে মার্কোপোলোর বৃত্তান্তে। কাজেই মানুষের সাথে এই মুরগির বন্ধুত্ব কম দিনের নয়। আজও বিশ্বের নানা দেশে পোষ্য হিসেবে সেই দোস্তি বজায় রেখেছে সিল্কি।

সূত্র:  পরিবর্তন
এইচ/১২:৩৪/০২ সেপ্টেম্বর