logo

রূপসা রেলসেতুর প্রথম স্প্যান বসছে জুনে

রূপসা রেলসেতুর প্রথম স্প্যান বসছে জুনে

খুলনা, ২৭ মে- খুলনা থেকে মোংলা পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের রূপসা রেলসেতুর প্রথম স্প্যান বসানো হবে জুন মাসের মধ্যেই।

প্রকল্পে খুলনা অংশে এ স্প্যান বসবে। এ জন্য প্রয়োজনীয় মালামাল খুলনায় আনা হয়েছে। এছাড়া সেতু এলাকায় দুই শতাধিক পাইলিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে। রেললাইন নির্মাণ কাজও চলছে পুরোদমে। ইতোমধ্যে প্রকল্পের ৩৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে।

প্রকল্প অফিস সূত্রে জানা গেছে, প্রকল্পের খুলনা অংশের জমি ২০১৬ সালের ৩ নভেম্বর এবং বাগেরহাট অংশের জমি ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি বুঝে পান কর্মকর্তারা। ২০১৬ সালের ১৪ এপ্রিল কাজ শুরু হলেও প্রথম দিকে কিছুটা ধীরগতি ছিল। এখন কাজের গতি বেড়েছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, সব ঠিক থাকলে নির্মাণকাজ শেষে ২০২০ সালের মধ্যে মোংলা বন্দরের সঙ্গে যুক্ত হবে সারাদেশের রেল যোগাযোগ। তবে এর আগে খুলনার ফুলতলা থেকে আড়ংঘাটা পর্যন্ত রেলপথ চালুর পরিকল্পনা রয়েছে এ বছরই।

রেলওয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুর রহিম জানান, গত বছর ১৫ অক্টোবর রূপসা রেলসেতুর পাইলিংয়ের কাজের উদ্বোধন করা হয়। আগামী ৩০ জুনের মধ্যে রূপসা রেলসেতুর খুলনা অংশে প্রথম স্প্যান বসানো হবে। মাটি থেকে ১৬ মিটার উঁচুতে এই স্প্যান বসানো হবে। এরই মধ্যে ভারত থেকে ৩২ দশমিক ৫ মিটারের গার্ডার আনা হয়েছে। মোট ১৪২টি স্প্যান বসবে।

তিনি জানান, রূপসা রেলসেতু নির্মাণের জন্য ৯৫৮টি পাইলিং করার প্রয়োজন হবে। এর মধ্যে ৮৮৬টি নদীর দু'পাড়ে এবং ৭২টি নদীর মধ্যে। এরই মধ্যে দুই শতাধিক পাইলিংয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া রেলপথ নির্মাণের জন্য ১০ হাজার ৮৫০ মেট্রিক টন রেলপাটি প্রয়োজন হবে, যা আনা হয়েছে। খুলনা ও মোংলার আটটি স্টেশনে প্রবেশের অ্যাপ্রোচ রোডের প্রাথমিক কাজে অগ্রগতি হয়েছে। এখন ফুলতলা স্টেশনের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে। সব মিলিয়ে প্রকল্পের নির্মাণ কাজের অগ্রগতি ৩৫ শতাংশ।

রেললাইনের দৈর্ঘ হবে ৮৬ দশমিক ৮৭ কিলোমিটার। এর মধ্যে ৬৪ দশমিক ৭৫ কিলোমিটার ব্রডগেজ রেলপথ নির্মাণ হবে। রূপসা রেলসেতুর দৈর্ঘ্য হবে ৫ দশমিক ১৩ কিলোমিটার।

প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৮০১ কোটি টাকা। বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থায়ন (জিওবি) ও ভারত সরকারের আর্থিক সহায়তায় এই রেলপথটি নির্মিত হচ্ছে। 

সূত্র: সমকাল
এমএ/ ০৯:২২/ ২৭ মে