logo

সবুজ পাহাড় রক্তে লাল, ব্রাশফায়ারে নিহত ৫

সবুজ পাহাড় রক্তে লাল, ব্রাশফায়ারে নিহত ৫

রাঙামাটি, ০৪ মে- রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শক্তিমান চাকমাকে হত্যার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই তার দাহক্রিয়ায় যোগ দিয়ে ফেরার পথে ব্রাশফায়ারে ৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত সাতজন। আজ শুক্রবার দুপুরে কেরেঙ্গাছড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে রয়েছেন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) থেকে বেরিয়ে গঠন করা ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলের আহ্বায়ক তপনজ্যোতি চাকমা বর্মা। নিহত বাকি দুজন হলেন সজীব চাকমা ও সেতুলাল চাকমা।

এ ঘটনার একদিন আগেই নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) দলের গণমাধ্যমের দায়িত্বে থাকা লিটন চাকমা হত্যাকাণ্ডের জন্য ইউপিডিএফকে দায়ী করেন। তিনি দাবি করেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে একক সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার জন্য তারা একের পর এক খুনের ঘটনা ঘটিয়ে চলেছে।

রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবিরও নানিয়ারচর-মহালছড়ি সীমান্তে হামলায় তিনজন নিহত হওয়ার বিষয়টি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

আহত ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, হতাহতরা সবাই শক্তিমান চাকমার দাহক্রিয়ায় যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। আহতদের মধ্যে আটজনকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: দাফনের ১১ দিন পরে জীবিত উদ্ধার! 

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) শীর্ষ নেতা সুদর্শন চাকমা জানান, গুরুতর আহত তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রামে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

আহত ব্যক্তিরা আরো জানান, শক্তিমান চাকমার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে যাওয়ার পথে কেরেঙ্গাছড়ি এলাকায় গাড়িবহরে গুলি শুরু করে দুর্বৃত্তরা। বেপরোয়া গুলিতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনজন। আহত হন অনেকেই।

নিহত তপনজ্যোতি চাকমা বর্মা সম্প্রতি ইউপিডিএফ থেকে বেরিয়ে নতুন দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করা ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক)-এর আহ্বায়ক হয়েছিলেন।

তথ্যসূত্র: এনটিভি
আরএস/০৯:০০/ ৪ মে