টলিউড

হাইকোর্টের বিচারপতির মন্তব্যে কিছুটা স্বস্তি পেলেন মিঠুন

কলকাতা, ৩০ জুলাই – গেলো বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপিতে যোগ দিয়ে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন দাপুটে অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। সেসময় তিনি তার অনস্ক্রিনের ডায়লগের জন্য বেশি সমালোচিত ছিলেন। ‘মারব এখানে, লাশ পড়বে শ্মশানে’; ‘আমি জলঢোঁড়াও নই, বেলেবোড়াও নই, আমি জাত গোখরো, এক ছোবলে ছবি’ এসব ডায়লগের জন্য তাকে নিয়ে ট্রোল করতেও ছাড় দেননি নেটজনতা। এবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতির মন্তব্যে কিছুটা স্বস্তি পেলেন মহাগুরু।

হাইকোর্টের বিচারপতি কৌশিক চন্দ জানিয়েছেন, ‘জনপ্রিয় ছবির সংলাপ কখনও হিংসা ছড়িয়েছে এমন উদাহরণ কি আছে? শোলের আমজাদ খান থেকে শুরু করে, আজ পর্যন্ত হাজার হাজার সিনেমায় জনপ্রিয় ডায়ালগ ব্যবহার হয়েছে। তবে সেসব থেকে কি কখনও কোন হিংসাত্মক ঘটনা ছড়িয়েছে?’

এদিকে শুনানির পর মিঠুন চক্রবর্তীর আইনজীবী বিকাশ সিংহ জানিয়েছেন, ‘আমার মক্কেলের বলা দুটি ডায়লগের জন্য তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। একটি বলেছিলেন ২০১৬ সালে তৃণমূলের সভায় এবং দ্বিতীয়টি বলেছিলেন বিজেপির ব্রিগেডে সমাবেশে। এই ঘটনায় বিচারপতি জানিয়েছেন, ডায়লগের জন্য মামলা করা হলে, শোলে’র পর অনেককেই জেলে ঢোকাতে হত।’

প্রসঙ্গত, বিধানসভা নির্বাচনের আগে ভোট প্রচারে নিজের অভিনীত সিনেমার একাধিক ডায়লগ বলেছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। তার সেসব ডায়লগের জন্য মানিকতলা থানায় অপরাধমূলক ষড়যন্ত্র, উস্কানিমূলক মন্তব্য, শান্তিভঙ্গের চেষ্টা, বিভিন্ন গোষ্ঠী এবং ভিন্ন ধর্মের মানুষের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়ানোসহ একাধিক ধারায় মামলা এফআইআর করেন মৃত্যুঞ্জয় পাল। সেই মামলার জন্যই কলকাতার হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। আগামী মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) দুপুরে এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে।

এস সি/ ৩০ জুলাই

Back to top button