মধ্যপ্রাচ্য

পর্যটকদের জন্য দরজা খুলছে সৌদি আরবের

রিয়াদ, ৩০ জুলাই – প্রায় দেড় বছর পর বিদেশি পর্যটকদের জন্য সীমান্ত উন্মুক্ত করতে রাজি হয়েছে সৌদি আরব। তবে এর জন্য বেঁধে দেয়া হয়েছে কড়া শর্ত। কেবল সৌদি সরকার অনুমোদিত করোনাভাইরাসরোধী টিকার প্রয়োজনীয় সব ডোজ নেয়া থাকলেই দেশটিতে প্রবেশাধিকার পাবেন ভিনদেশি পর্যটকেরা। তবে তাদের ওমরাহ পালনে বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করা হচ্ছে কি-না, তা নিশ্চিত করেনি রিয়াদ। শুক্রবার সৌদির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম।

খবরে বলা হয়েছে, আগামী ১ আগস্ট থেকে বিদেশি পর্যটকদের জন্য দরজা খুলে দেবে সৌদি আরব এবং পর্যটক ভিসাধারীদের প্রবেশাধিকারে স্থগিতাদেশও প্রত্যাহার করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে দেশটির পর্যটন মন্ত্রণালয়।

সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, পর্যটকেরা কেবল সৌদি অনুমোদিত; অর্থাৎ ফাইজার, অ্যাস্ট্রাজেনেকা বা মডার্নার দুই ডোজ অথবা জনসন অ্যান্ড জনসনের করোনা টিকার এক ডোজ নেয়া থাকলেই দেশটিতে প্রবেশ করতে পারবেন। সৌদিতে পৌঁছে তাদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না।

তবে স্বদেশ ছাড়ার আগের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করা করোনা টেস্টের নেগেটিভ ফলাফল আসা এবং স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের কাছে সকল তথ্যাদি জমা দিয়ে নিবন্ধন করতে হবে পর্যটকদের।

তেলনির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসার প্রচেষ্টায় পর্যটন খাত ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে সৌদি আরব। এই লক্ষ্যে ২০১৯ সালে প্রথমবারের মতো পর্যটক ভিসা ইস্যু করা শুরু করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি।

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০২০ সালের মার্চ মাসের মধ্যে চার লাখ পর্যটক ভিসা ইস্যু করেছিল সৌদি আরব। এরপর মহামারি হানা দেয়ায় সীমান্ত বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় দেশটির সরকার। এমনকি বছর দুয়েক ধরে বিদেশিদের হজ ও ওমরাহ পালনেরও অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। বর্তমানে কেবল টিকা নেয়া সৌদি নাগরিকরা ওমরাহ পালনের অনুমতি পাচ্ছেন।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ৩০ জুলাই

Back to top button