অস্ট্রেলিয়া

সিডনিতে একদিনে রেকর্ড শনাক্ত ২৩৯

সিডনি, ২৯ জুলাই – অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম শহর সিডনিতে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে ব্যাপকভাবে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। বৃহস্পতিবার সেখানে একদিনে ২৩৯ জন করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। মহামারি শুরুর পর সেখানে এটিই একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবরে এ তথ্য জানা যায়।

সিডনিতে সরকারঘোষিত লকডাউন বাস্তবায়নে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার জন্য পুলিশকে বাড়তি ক্ষমতা প্রয়োগে নির্দেশনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে করোনা সংক্রমণের আটটি হটস্পটে সেখানকার প্রায় দুই মিলিয়নেরও বেশি বাসিন্দাকে ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরার নির্দেশ দেয়া হয়েছে এবং তাদের বাসাবাড়ির পাঁচ কিলোমিটারের (তিন মাইল) মধ্যে থাকতে বলা হয়েছে।

সেখানে এখন পর্যন্ত দুই হাজার ৮০০ জনের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে ১৮২ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৫৪ জন নিবিড় পর্যবেক্ষণে (আইসিইউ) রয়েছেন এবং ২২ জনকে ভ্যান্টিলেশনে রাখা হয়েছে। এদিন নতুন করে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মহামারি শুরুর পর এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

করোনার অধিক সংক্রমণশীল ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়ার পর সিডনিতে চলমান লকডাউন আরও চার সপ্তাহ বাড়ানো হয়েছে। সিডনির ৫ মিলিয়ন মানুষকে আগামী ২৮ আগস্ট পর্যন্ত মেনে চলতে হবে এই বিধিনিষেধ।

সিডনিতে স্থানীয়ভাবে শনাক্ত বেশিরভাগ রোগীর মধ্যে কমপক্ষে ৬৬ শতাংশ ওই এলাকায় চলাফেরা করার মাধ্যমে সংক্রমিত হয়েছেন। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সংক্রমণের হার শূন্যের কাছাকাছি না আসা পর্যন্ত লকডাউন তুলে নেয়া হবে না।

সিডনির প্রিমিয়ার গ্ল্যাডিজ বেরেজিক্লিয়ান সাংবাদিকদের বলেন, কোনো ভুলের জন্য কিংবা ভুল কিছু করার জন্য অল্প কিছু মানুষই যথেষ্ট। এক্ষেত্রে খারাপ কোনো কিছু ঘটার জন্য খুবই কম মানুষরে দরকার পড়ে। আমরা তাদের আটকে রাখতে পারি না।

অস্ট্রেলিয়ার আরেক প্রদেশ নিউ সাউথ ওয়েলসে ২৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। সেখানে নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে কর্তৃপক্ষ।

তথ্যসূত্র: জাগো নিউজ
এস সি/ ২৯ জুলাই

 

Back to top button