ইসলাম

ওমরাহ পালনে বাংলাদেশসহ বিদেশিদের যেসব শর্ত মানতে হবে

রিয়াদ, ২৯ জুলাই-  মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে গত দুই বছর ধরে সৌদিতে অবস্থানরতদের নিয়ে সীমিত আয়োজনে হজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশসহ অনেকে দেশের জন্য দীর্ঘদিন বন্ধ রয়েছে ওমরাহ। আগামী ১ মহররম (সম্ভাব্য ১০ আগস্ট) থেকে ৯টি দেশ ছাড়া বাংলাদেশসহ অনেক দেশের জন্য ওমরার অনুমোদন দিয়েছে সৌদি সরকার। তবে বেশি কিছু শর্ত পালন সাপেক্ষে এ ওমরাহ পালনের সুযোগ পাবে বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশের নাগরিকরা।

সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ বিষয়ক ‘হারামাইন শারিফাইন’ নামক অফিসিয়াল পেইজে প্রকাশিত কিছু তথ্য তুলে ধরেছেন। যেখানে বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে ওমরাহ করতে আসতে হলে শুরুতেই যেসব শর্ত মানতে হবে; তাহলো-
১. ওমরাহ করতে ইচ্ছুক মুসল্লিরা বিশ্বের সব দেশ থেকে সরাসরি ফ্লাইটে সৌদি আরবে প্রবেশ করতে পারবে। তবে ১৩ দেশের মুসল্লিরা ওমরা করতে পারবে না। দেশগুলো হচ্ছে- আফগানিস্তান, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, মিসর, ইথিওপিয়া, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, নেবানন, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, তুরস্ক, ভিয়েতনাম এবং আরব আমিরাত।

যদিও আগে ৯ দেশের ওপর ওমরাহ নিষেধাজ্ঞা ছিল; গত ২৮ জুলাই আরও ৪ দেশ- আফগানিস্তান, ইথিওপিয়া, ভিয়েতনাম ও আরব আমিাতের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। তবে এই দেশগুলো থেকে কোনো মুসল্লি যদি ওমরাহ করতে চায়; তবে তৃতীয় কোনো দেশে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষে তবেই সৌদি আরবে ওমরাহ করতে যেতে পারবে।

২. ওমরাহ পালনে ইচ্ছুক সবাইকে আগে থেকেই বাধ্যতামূলকভাবে করোনাভাইরাসের সম্পূর্ণ ডোজ টিকা নিতে হবে। আর সেই টিকা হতে হবে- ফাইজার, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা অথবা জনসন অ্যান্ড জনসনের। এসব টিকার দুটি ডোজ গ্রহণ করা ছাড়া সৌদি আরবে প্রবেশ করা যাবে না।

৩. কেউ যদি চীনের তৈরি সিনোফার্মের টিকার দুটি ডোজ টিকা নিয়ে থাকেন কিংবা উল্লেখিত টিকা ছাড়া অন্য কোনো টিকা নিয়ে থাকেন তবে তাদেরকেও ফাইজার, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা অথবা জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকার বাড়তি বুস্টার ডোজ গ্রহণ করতে হবে।

সূত্রঃ জাগো নিউজ

আর আই, ২৯ জুলাই  ২০২১

Back to top button