সচেতনতা

যাত্রাকালীন অসুস্থতা

যে কোন যানবাহনে উঠলে আপনি যেন কেমন অস্বস্তিতে ভোগেন, ঠাণ্ডা ঘাম হতে থাকে এবং শেষে আপনি বমি করতে থাকেন। এইগুলো মোশন সিক্নেস (গড়ঃরড়হ ংরপশহবংং) বা গতিজনিত অসুস্থতা বলে। গতি থামলেই আবার অসুস্থতা কমে যায়। যত আপনার ভ্রমণ বাড়তে থাকে তত আপনি গতির সঙ্গে খাপখাইয়ে নিতে পারেন।

ভ্রমণের আগে আপনি যদি একটি পরিকল্পনা করেন তাহলে আপনি ভালভাবে ভ্রমণটা উপভোগ করতে পারেন।

ভ্রমণের আগে একটি সুবিধামতো সিট রিজার্ভ করে নিন।

যদি জাহাজে হয়, তবে জাহাজের অগ্রভাগে বা মধ্যভাগে একটি ক্যাবিনের জন্য অনুরোধ করতে পারেন, কিংবা উপরের ডেকে।
যদি প্লেনে হয়, তবে পাখার সম্মুখভাগে কোন একটি সিটের জন্য অনুরোধ করুন। যখন প্লেন চলছে, বাতাসের প্রবাহ আপনার মুখম-লের ওপর ফেলুন।

যদি ট্রেনে হয়, জানালার পাশে একটি সিট নিন। ট্রেন যেদিকে চলেছে সে দিকে মুখ ফিরে বসুন।

যদি বাস বা গাড়িতে হয় তবে সামনের দিকে সিটে বসুন।

আপনি যদি মোশন সিকনেসে ভোগেন তাহলে

* তাকান দূর-দিগন্তে কিংবা দূরবর্তী কোন বস্তুর দিকে, পড়তে যাবেন না

* মাথাটা সিটে এলিয়ে রাখুন

আরও পড়ুন- যেসব খাবার খেলে দূর হয় অবসাদ

* ধূমপান থেকে বিরত থাকুন বা ধূমপায়ীদের থেকে দূরে থাকুন

* বেশি মসলাযুক্ত এবং তৈলাক্ত খাদ্য খুব কম খাবেন।

* কিছু এ্যান্টিহিস্টামিন যেমন (মেক্লিজিন বা ডাইমেনহাইড্রিনেট ৩০-৬০ মিনিট আগে খেয়ে নিতে পারেন। তবে খেয়াল রাখুন এতে ঘুম ঘুম ভাব আসতে পারে

* স্কোপলামিনের কথা ভাবতে পারেন : ভ্রমণের আগে কানের পিছনে স্কোপোলামিন প্যাচ লাগিয়ে নিন। এটা ব্যবহারের আগে অবশ্যই এ্যাজমা, গ্লুকোমা ও প্রস্রাবজনিত সমস্যার রোগীদের সতর্ক হতে হবে।

* মচমচে শুকনো খাবার খান, পান করতে পানের কার্বোনেটেড তরল পানীয়। উপকার পাবেন।

আডি/ ২২ অক্টোবর

Back to top button