বলিউড

যেভাবে কোটিপতি হলেন বাস কন্ডাক্টরের ছেলে রাজ কুন্দ্রা

মুম্বাই, ২২ জুলাই – পর্নো ভিডিও তৈরি ও একটি অ্যাপের মাধ্যমে সেগুলো সরবরাহ করার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী শিল্পী শেঠির স্বামী ও ব্যবসায়ী রাজ কুন্দ্রা।

গত মঙ্গলবার তাকে আদালতে হাজির করা হয়। পর্যাপ্ত তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতেই রাজ কুন্দ্রাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মুম্বাই পুলিশ।

এদিকে এমন খবরে তোলপাড় বলিউড পাড়া। পাশাপাশি ভারতীয় সিনেপ্রেমীরাও উঠে পড়ে লেগেছেন শিল্পার স্বামী ইতিহাস জানতে।

কীভাবে এতো বিত্তশালী হয়েছেন রাজ কুন্দ্রা? তিনি কি পৈত্রিকভাবেই সম্পদশালী? বলিউড সুন্দরী শিল্পার সঙ্গে তার পরিচয় কিভাবে? তার এতো সম্পদ অর্জনের পেছনে আর কি কি কালো অধ্যায় জড়িত?

স্বাভাবিকভাবেই এসব প্রশ্ন উঠতেই পারে।

ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর, নেহায়েত দরিদ্র পরিবারের সন্তান রাজ কুন্দ্রা। এক সময় তার বাবা বালকৃষ্ণ ব্রিটেনে ছোটখাটো একজন বাস কন্ডাক্টর হিসেবে কাজ করতেন। যা বেতন পেতেন তা দিয়েই চলত সংসার। অর্থাভাবে রাজ কুন্দ্রা তার কলেজের পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি।

আর সেই ব্যক্তি ২০০৪ সালে সাকসেস ম্যাগাজিনে এশিয়ান বংশোদ্ভূত ধনী ব্যক্তিদের তালিকায় ১৯৮তম স্থানে উঠে আসেন। মাত্র ২৯ বছর বয়সে এই তালিকায় উঠে আসা সর্বকনিষ্ঠ ব্যক্তি ছিলেন রাজ কুন্দ্রা।

নিম্মবিত্ত অবস্থা থেকে রাজের ধনী ব্যবসায়ী হওয়ার যাত্রাটা সহজ ছিল না অবশ্য। মাত্র দেড় লাখ রুপি মূলধন দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন রাজ। নেপালের পশমিনা শালই তার ভাগ্যের চাকা দ্রুত গতিতে ঘুরিয়ে দেয়।

১৯৯৪ সালে নেপাল ভ্রমণে যান রাজ। সেখান থেকে পশমিনা শাল নিয়ে ব্রিটেনে ফিরে আসেন। বড় বড় সব ব্রিটিশ ফ্যাশন হাউসগুলোতে শালগুলো দেখান। এরপর শুরু হয় ব্যবসা।

কন্টেইনার ভর্তি করে পশমিনা শাল ব্রিটেনে নিয়ে দেদারসে বিক্রি করতে থাকেন। প্রথম বছরেই ২০ মিলিয়ন পাউন্ড লাভ করেছিলেন রাজ। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে।

সামান্য বাস কন্ডাক্টারের ছেলে বিত্তশালী হয়ে ওঠেন দ্রুতই। শাল আমদানির ব্যবসা যখন তাকে একটি অবস্থানে এনে দেয় তখন হীরার ব্যবসায় হাত দেন। সেখানেও সফল হন।

এর পর রাশিয়া, ইউক্রেন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের মতো দেশগুলোর সঙ্গে খনিজ, রিয়েল এস্টেট এবং নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবসায় জড়িত হন রাজ। এভাবেই একের পর এক সাফল্যগাঁথা লিখতে থাকেন রাজ।

তবে ভারতীয় পুলিশের চোখে রাজ অপরাধীর দৃষ্টিতে ছিলেন গত কয়েক বছর ধরে।

২০১২ সালে ভারতের জনপ্রিয় ফ্রাঞ্চাইজি লিগ আইপিএলে স্পট ফিক্সিংয়ের মামলায় অভিযুক্ত ছিলেন রাজ। তাকেও গ্রেফতার করা হয়েছিল। আইপিএল দল রাজস্থান রয়্যালসে একটি অংশীদারিত্ব ছিল রাজ কুন্দ্রার।

তবে থেকেই পুলিশি নজরদারিতে ছিলেন রাজ। সম্প্রতি এক মডেল-অভিনেত্রীর অভিযোগের ক্লু ধরে কেঁচো খুড়তে সাপ বেরিয়ে আসে।

পর্নোভিত্তিক চলচ্চিত্র তৈরির মূল হোতা হিসেবে মুখোশ উন্মোচন হয়েছে শিল্পা শেঠির স্বামী রাজ কুন্দ্রার।

এন এইচ, ২২ জুলাই

Back to top button