ফুটবল

লিওনেল মেসি এখন তৃপ্ত

স্বর্গ থেকে দিয়াগো ম্যারাডোনা নিশ্চয় আশীর্বাদ করেছেন লিওনেল মেসিকে! বেঁচে থাকলে সশরীরে মারাকানায় উপস্থিত থাকতেন। আর্জেন্টিনা, মেসির হয়ে গলা ফাটাতেন। তিনি বেঁচে থাকা অবস্থায় আর্জেন্টিনার জার্সিতে প্রিয় অনুজের হাতে কোনো শিরোপা উঠতে দেখেননি। অথচ তার মৃত্যুর (২৫ নভেম্বর ২০২০) সাত মাস পরই কিনা মেসি প্রথমবার দেশের হয়ে কোনো শিরোপা জিতলেন। তাও আবার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে তাদের মাঠেই হারিয়ে।

ম্যারাডোনা দেশকে বিশ^কাপ জয়ের স্বাদ পাইয়ে দিয়েছেন। কিন্তু আর্জেন্টাইন এই ফুটবল কিংবদন্তি কখনো কোপা আমেরিকা জিততে পারেননি। আর মেসি দেশের হয়ে প্রথমবার যে আন্তর্জাতিক ট্রফিটা জিতলেন, সেটি হলো কোপা আমেরিকা। তার নেতৃত্বেই ২৮ বছর পর মেজর কোনো ট্রফি জিতলেন আলবিসেলেস্তেরা। আর দীর্ঘ ১৬ বছরের অপেক্ষার অবসান হলো মেসির। ফুটবল বিধাতা ক্লাব বার্সেলোনার জার্সিতে তাকে সব দিয়েছেন, শুধু আর্জেন্টিনার জার্সিতে এতদিন একটি ট্রফি দেননি! এবার আর বঞ্চিত করলেন না তাকে। বরং কোপার শিরোপা তুলে দিয়ে মেসির কাছে ফুটবলের যে ঝণ ছিল, এর কিছুটা যেন শোধ করে দিলেন।

কেউ কেউ মেসিকে সর্বকালের সেরা ফুটবলার বলেন! ক্লাব বার্সেলোনার হয়ে এমন কোনো ট্রফি নেই- যেটি তিনি জেতেননি। ছয়বারের ব্যালন ডি’অরজয়ী তারকার একটিই আক্ষেপ ছিল- সেটি আর্জেন্টিনার জার্সিতে মেজর কোনো ট্রফি জিততে না পারা। ২০০৫ সালে জাতীয় দলে অভিষেক হওয়ার পর তিনটি কোপার ফাইনাল (২০০৭, ২০১৫, ২০১৬) ও একটি বিশ^কাপ ফুটবলের (২০১৪) ফাইনাল খেলেছেন এই আর্জেন্টাইন ম্যাজিশিয়ান। তবে প্রতিটি আসরেই তার স্বপ্নভঙ্গ হয়েছে। রানার্সআপ হয়ে তুষ্ট থাকতে হয়েছে। এবারও কি এমন কিছুই হতে চলেছিল?

শুক্রবার রাতে মেসি ঠিকমতো ঘুমাতে পারেননি। বয়স বিবেচনায় (৩৪) এটিই হয়তো তার শেষ কোপা আমেরিকায় খেলা। লাতিন আমেরিকার সেরা হওয়ার লড়াইয়ে শিরোপা জিতে ফুটবলের দুঃখী রাজপুত্রের দুঃখ মোচনের শেষ সুযোগও এটিই। মেসি ঘুমাবেন কীভাবে? একটি শিরোপা জয়ের তাড়না তার ঘুমটাই যে কেড়ে নিয়েছিল!

শনিবার ব্রাজিল সময় রাত ৯টায় (১১ জুলাই, বাংলাদেশ সময় রবিবার ভোর ৬টা) ঐতিহাসিক মারাকানা স্টেডিয়ামে সেলেসাওদের মুখোমুখি আর্জেন্টিনা। অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়ার একমাত্র গোলে ‘সুপারক্ল্যাসিকো’ জিতে প্রথমবার শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলেন মেসি। এরই মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ১৬ বছরের অপেক্ষা ফুরাল তার। বাঁ পায়ের জাদুতে গোটা ফুটবল বিশ^কে বিমোহিত করা মেসিকে এখন থেকে আর কেউ বলতে পারবেন না, তার দেশের হয়ে কোনো ট্রফি নেই। মেসি এখন তৃপ্ত। তাই তো কোপার শিরোপা জয়ের পর তিনি বলেছেন- ‘আমার মনে হয়, ঈশ্বর এমন একটি মুহূর্ত আমার জন্যই বাঁচিয়ে রেখেছিলেন। ব্রাজিলের বিপক্ষে ফাইনাল জেতা, তাও তাদেরই দেশে!’

২০২২ সালে কাতারে ফুটবল বিশ^কাপের আসর বসবে। ১৯৭৮ ও ১৯৮৬ সালের বিশ^কাপজয়ী দলটি কি মেসির নেতৃত্বে আরও একবার বিশ^সেরার খেতাব উঁচিয়ে ধরতে পারবেন? সেটি না হয় সময়ের হাতেই তোলা থাক। আপাতত কোপা জয়ের বুঁদেই মেতে থাকুন মেসি।

সূত্র : আমাদের সময়
এন এইচ, ১৯ জুলাই

Back to top button