পশ্চিমবঙ্গ

ইডি অফিসার সেজে তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনকে ‘প্রতারণা’, গ্রেফতার অভিযুক্ত

কলকাতা, ১৬ জুলাই – এবার ভুয়ো এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টর অফিসার (Kolkata Fake Officer)। এবার প্রতারণার শিকার হলেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন। ইডি অফিসার পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি তাঁকে প্রতারণা করেন বলে অভিযোগ। ইতিমধ্যেই লালবাজারে অভিযোগ দায়ের করেছেন শান্তনু সেন। অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে এক জনকে।

তৃণমূল সাংসদের বয়ান অনুযায়ী, এক ব্যক্তি তাঁকে ফোন করে নিজেকে ইডি অফিসার পরিচয় দেন। শুধু তাই নয়, সেই পরিচয় ভাঙিয়ে মোটা টাকাও দাবি করা হয় তাঁর কাছ থেকে। ইডি সংক্রান্ত বিভিন্ন কাজে সাংসদকে সাহায্য করবেন বলেও ফোনে জানিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি।

এখানেই সন্দেহ হয় তৃণমূল সাংসদের। তিনি গোটা বিষয়টি লালবাজারে জানান। তদন্তে নামে পুলিশ। ফোন কল খতিয়ে দেখা হয়। এরপর ফোন নম্বরের সূত্র ধরেই তদন্ত শুরু করেন গোয়েন্দারা। জালে ধরা পড়েন অভিযুক্ত। আপাতত এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আর কেউ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে আছে কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এই ব্যক্তি একই চালে আর কোথাও ফোন করেছেন কিনা, তাঁর ফাঁদে আর কেউ পা দিয়েছেন কিনা, সবই খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

তবে তদন্তকারীরা এই ব্যক্তির সাহসিকতার তারিফ করেছেন। কীভাবে একজন সাংসদকে জালে ফেলার চেষ্টা করলেন তিনি? তাঁর পিছনে কি আদৌ কোনও বড় মাথা বা চক্র কাজ করছে? না হলে এত বড় রাজনীতিবিদকে একটা ফোন করে প্রতারণার জাল বিছানো কোনও সহজ বিষয় নয়, বলছেন তদন্তকারীরাই।

রাজ্যজুড়ে পুলিশের জালে ধরা পড়ছে একের পর এক ‘পেল্লাই’ প্রতারক। যাঁদের হাত অনেক লম্বা। ভুয়ো আইএএস দেবাঞ্জন দেব হোক কিংবা ভুয়ো সিবিআই কৌসুলী সনাতন রায় চৌধুরী- তাঁদের সঙ্গে প্রভাবশালী যোগের প্রমাণ মিলেছে। কিন্তু তাঁরা এভাবে সরাসরি কোনও প্রভাবশালীকে প্রতারিত করেছেন, এই তথ্য সামনে আসেনি এখনও। কিন্তু এবার সরাসরি প্রভাবশালীকেই জালে ফেলার চেষ্টা করেছেন এই ব্যক্তি। গোটা বিষয়টি তলিয়ে ভাবছেন তাঁরা।

সূত্র: টিভিনাইন
এম ইউ/১৬ জুলাই ২০২১

Back to top button