কিশোরগঞ্জ

কিশোরগঞ্জে করোনার উপসর্গে মৃত্যু ২ , শনাক্ত ১০০

কিশোরগঞ্জ, ১২ জুলাই- কিশোরগঞ্জে করোনাভাইরাস কোভিড-১৯ সংক্রমণ পরিস্থিতি বিপজ্জনক আকার ধারণ করছে। ভয়াবহ এ ভাইরাস শনাক্তের পাশাপাশি বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। প্রতিদিনেই মৃত্যুর মিছিলে যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন নাম। এ পরিস্থিতিতে জেলায় নতুন করে দুইজন করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।

জেলার করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সর্বশেষ সোমবার প্রকাশিত রিপোর্টে মোট ১০০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর বিপরীতে জেলা এদিন সুস্থ হয়েছেন মোট ৪০ জন। ফলে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি দিন দিনই উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে।

সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী, কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের আরটি-পিসিআর ল্যাবে গত ৬ জুলাই সংগৃহীত মোট ২১৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে ৬০ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে। এ রিপোর্টে মোট ৪২৪ জনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে।

বাকি ২০৬ জনের মধ্যে বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে শনিবার (১০ জুলাই) ১০৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৫ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

এ ছাড়া কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল এবং করিমগঞ্জ, তাড়াইল, কটিয়াদী, কুলিয়ারচর ও ইটনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মোট ১০০ জনের রেপিড এন্টিজেন টেস্টে ২৫ জনের কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে। ফলে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বর্তমান রোগীর সংখ্যা ৬০ জন বেড়েছে।

এর আগে জেলায় করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যা ছিল ১২০৮ জন। জেলায় বর্তমান রোগীর সংখ্যা মোট ১২৬৮ জন। জেলায় নতুন করোনা শনাক্ত হওয়া মোট ১০০ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় সর্বোচ্চ ৪৬ জন শনাক্ত হয়েছে।

বাকি ৫৪ জনের মধ্যে হোসেনপুর উপজেলায় ৮ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৯ জন, তাড়াইল উপজেলায় ১ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ৬ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১৪ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ৫ জন, ভৈরব উপজেলায় ৪ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৪ জন, ইটনা উপজেলায় ২ জন এবং অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১ জন শনাক্ত হয়েছে।

নতুন সুস্থ হওয়া ৪০ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৩০ জন রয়েছেন। বাকি ১০ জনের মধ্যে তাড়াইল উপজেলার ৪ জন, কুলিয়ারচর উপজেলার ২ জন ও ভৈরব উপজেলার ৪ জন রয়েছেন।

কিশোরগঞ্জের শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কোভিড ইউনিটে বর্তমানে আক্রান্ত ও সন্দেহজনক মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১৪৬ জন যাদের মধ্যে ১০ জন আইসিইউতে রয়েছেন।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ২৯ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন এবং ১৭ জন ছাড়পত্র পেয়েছেন। হাসপাতালটিতে দুইজন সন্দেহজনক কোভিড-১৯ রোগী মারা গেছেন।

এই সময় পর্যন্ত জেলায় মোট ৬৮৯৪ জন শনাক্ত, ৫৫১৫ জন সুস্থ এবং ১১১ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

বর্তমানে জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ১২৬৮ জন। তাদের মধ্যে ৭০ জন হাসপাতাল ও ১১৯৮ জন হোম আইসোলেশনে রয়েছেন। শনাক্ত, সুস্থ ও মৃত্যু সব সূচকেই জেলার মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা শীর্ষে রয়েছে।

বর্তমানে করোনা আক্রান্ত মোট ১২৬৮ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৭৪১ জন, হোসেনপুর উপজেলায় ৩২ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ৪৫ জন, তাড়াইল উপজেলায় ৪০ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলায় ৮৩ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১০৪ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ১৫ জন, ভৈরব উপজেলায় ১৩৫ জন, নিকলী উপজেলায় ১০ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৩২ জন, ইটনা উপজেলায় ২৫ জন, মিঠামইন উপজেলায় ৫ জন এবং অষ্টগ্রাম উপজেলায় ১ জন রয়েছেন।

জেলায় মোট মৃত্যুবরণকারী ১১১ জনের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৪০ জন।বাকি সব অন্যান্য ১২ উপজেলায়। জেলার একমাত্র অষ্টগ্রাম উপজেলায় এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে কোন মৃত্যু নেই।

কিশোরগঞ্জ জেলার সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চত করেছেন।

সূত্রঃ সমকাল

আর আই

Back to top button