চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ভাসানচর থেকে পালিয়ে আসা ১৮ রোহিঙ্গা আটক

চট্টগ্রাম, ১২ জুলাই – নোয়াখালী জেলার ভাসানচর থেকে পালিয়ে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে আসা শিশুসহ ১৮ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ। আটক ব্যক্তিদের মধ্যে ৮ শিশু, ৬ নারী ও ৪ জন পুরুষ।

রোববার সকাল ৯ টার দিকে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলের ইছাখালী ইউনিয়নের চরশরৎ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জোরারগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ফারুকী।

আটককৃত রোহিঙ্গারা হলেন, মো. আলী উল্লাহ (২৫), নজুমা বেগম (২০), আবদুর রশীদ (৩০), আবদুল মজিদ (২১), সামিরা (১৯), মনসুর আলম (২৮), ছলিমা বেগম (২৬), মর্জিনা আক্তার (২২), রোকেয়া আক্তার (২১), আছমিদা (১৯), উম্মে হাবিবা (২১), সামছুননাহার (৩), ইমরান খান (৮), হামিদা বেগম (৭), মোশারাফা বেগম (৬), সামিয়া বেগম (২), মুনতাহা সুলতানা রিনা (৬) ও আবদুল রহমান (২)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নৌকায় উত্তাল সাগর পাড়ি দিয়ে শিশু, নারী, পুরুষসহ ১৮ রোহিঙ্গার একটি দল মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল এলাকার সমুদ্র উপকূলে এসে নামে। সেখান থেকে চরশরৎ এলাকায় এলে স্থানীয় লোকজন তাদের আটক করে শিল্প পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা শিল্প পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, স্থানীয় লোকজন ভাসানচর থেকে পালিয়ে আসা ১৮ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে।

এমন খবর পেয়ে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ তাদের নিয়ে যায়। আটক রোহিঙ্গা সদস্যদের মধ্যে অন্তঃসত্ত্বা এক নারী ও কয়েকটি অসুস্থ শিশু আছে।

জোরারগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ফারুকী বলেন, আটক রোহিঙ্গারা নোয়াখালীর ভাসানচর থেকে ট্রলার রিজার্ভ করে মিরসরাইয়ের অর্থনৈতিক জোন এলাকায় এসে নামেন। সেখান থেকে তাদের টেকনাফের কুতুবপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাওয়ার কথা ছিল।

পরে স্থানীয়দের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে তাদের আটক করে থানায় আনা হয়েছে। আটক রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২২ জুন ভাসানচর থেকে পালিয়ে আসা ১৪ জন ও ৩০ মে ৩ দালালসহ ১০ জন রোহিঙ্গাকে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল থেকে আটক করে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ১২ জুলাই

Back to top button