ফুটবল

তিন জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ইতালি, হেরেও নকআউটে ওয়েলস

ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপ পর্বে নিজেদের তিন ম্যাচেই জয় পেল ইতালি। আর তাতেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে নকআউট পর্ব নিশ্চিত আজ্জুরিদের। অন্যদিকে ইতালির কাছে হারলেও গ্রুপ-এ থেকে ইতালির সঙ্গে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করেছে ওয়েলস। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ওয়েলসের বিপক্ষে পেসসিনার একমাত্র গোলে জয় পায় ইতালি। এটি ইতালির টানা ১১তম জয়। আর এই নিয়ে টানা ৩০তম ম্যাচ অপরাজিত আজ্জুরিরা। শেষবার ২০১৮ সালের সেপ্টেবরে পর্তুগালের বিপক্ষে হেরেছিল সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ওয়েলসের বিপক্ষে জয়ের পরে ১৯৩৫ থেকে ১৯৩৯ সালে টানা ৩০ ম্যাচ অপরাজিত থাকার নিজেদের রেকর্ড স্পর্শ করল ইতালি।

গ্রুপ এ থেকে আগেই নকআউট পর্ব নিশ্চিত হয়েছিল ইতালির। অপেক্ষা ছিল কেবল গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন নির্ধারণের। রোমার এস্তাদিও অলিম্পিয়াকোতে সেটাও নিশ্চিত করল আজ্জুরিরা। এই নিয়ে টানা ৩০তম ম্যাচে অপরাজিত রইল ইতালি। আর গ্রুপ পর্বের তিন ম্যাচেই জয় নিয়ে পরের পর্বে গেল আজ্জুরিরা।

দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ইতালির লক্ষ্য গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই পরের রাউন্ডে যাওয়া। তাই তো এর আগে টানা ১০ ম্যাচে জয় পাওয়া আজ্জুরিরা খেলছিল ফুরফুরে মেজাজেই। নিজেদের শেষ ১০ ম্যাচে ৩১টি গোল করার বিপরীতে আজ্জুরিদের জালে বল জাড়াতে পারেনি কেউই। দুর্দান্ত রক্ষণের সঙ্গে দারুণ মধ্যমাঠ আর ক্ষুরধার আক্রমণ ভাগের রবার্তো মানচিনির দলের লক্ষ্য ছিল তিনে তিন। দিন শেষে পূরণ হয়েছে আজ্জুরিদের লক্ষ্য।

ওয়েলসকে ঘরের মাঠে শুরু থেকেই চাপে রাখে ইতালি। শুরু থেকেই আক্রমণ করতে থাকে আজ্জুরিরা। ম্যাচের ১৫তম মিনিয়ে এমারসনের নেওয়া দারুণ এক শট কোনো রকমে ঠেকিয়ে দেন ওয়েলস গোলরক্ষক ওয়ার্ড। এর মিনিট দুই পরে ডান দিক থেকে তলুইয়ের মাটি কামড়ানো ক্রস ডি-বক্সের ভেতর পেয়ে যান পেসসিনা। তবে বিপদ বুঝতে পেরে ঝাঁপিয়ে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় সেভ দেন ওয়ার্ড।

৩১তম মিনিটে ডি-বক্সের ভেতর পড়ে গিয়ে পেনাল্টির জোরালো আবেদন করেন ইতালির এমারসন। কিন্তু রেফারি তাতে কান না দিয়ে গোল কিকের বাঁশি বাজান। ভিএআরে পরবর্তীতে দেখা মেলে সঠিক সিদ্ধান্তই জানিয়েছেন রেফারি। তবে গোলের জন্য আর বেশি সময় অপেক্ষা কর‍তে হয়নি ইতালিকে। ৩৯তম মিনিটে মার্কো ভেরাত্তি সেট পিস থেকে ভাসানো বল বাড়ান ডি-বক্সের ভেতর। আর সেখান থেকে ডান পায়ের ভলিতে বল জালে জড়ান মাতেও পেসসিনা।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫৩ মিনিটে ফ্রিকিক থেকে ওয়েলসের গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন বার্নার্দেস্কি কিন্তু গোলপোস্টে লেগে বল ফিরে আসলে ব্যবধান বাড়েনি আজ্জুরিদের। এর দুই মিনিট বাদে বার্নার্দেস্কিকে বিপজ্জনক ফাউল করায় সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন ওয়েলসের এথান আম্পাদু। ম্যাচের বাকি থাকা প্রায় ৩৫ মিনিটেরও বেশি সময় ১০ জনের দল নিয়ে খেলতে হয়েছে ওয়েলসকে।

তবে ওয়েলসের ১০ জনের দলের সুবিধা নিতে পারেনি ইতালি। শেষ পর্যন্ত গোলের দারুণ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও আর গোল না হওয়ায় ওই ১-০ ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ইতালি। আর গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই ইউর ২০২০ এর নকআউটে নাম লেখায় আজ্জুরিরা।

সূত্র : সারাবাংলা
এম এউ, ২১ জুন

Back to top button