উত্তর আমেরিকা

পাঁচ চীনা বিজ্ঞানী যুক্তরাষ্ট্রে ভিসা জালিয়াতির দায়ে অভিযুক্ত

ওয়াশিংটন, ২০ জুন – চীনের প্রতিষ্ঠানগুলোর গোপন বাণিজ্য তথ্য চুরি ঠেকানোর পাশাপাশি মার্কিন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উদ্ভাবন করা প্রযুক্তি নিরাপদ রাখতে যুক্তরাষ্ট্রের আইন মন্ত্রনালয় ২০১৮ সালের শেষের দিকে ‘চায়না ইনিশিয়েটিভ’ নামে একটি কার্যক্রম চালু করে। এই কার্যক্রমের আওতায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন ইউনিভার্সিটিতে কর্মরত পাঁচজন চীনা বিজ্ঞানীর বিরুদ্ধে সামরিক সম্পর্ক গোপন রাখার অভিযোগে ভিসা জালিয়াতির অভিযোগ আনা হয়। এদের মধ্যে চারজনের বিরুদ্ধে আরো অতিরিক্ত অভিযোগ উত্থাপন করা হয়েছে। তবে অভিযুক্তদের সবাই নিজেদের নির্দোষ দাবি করেছেন।

অভিযুক্ত বিজ্ঞানীদের মধ্যে একজন ওয়াং শিন। তিনি সান ফ্রান্সিসকোর ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ায় বিপাক ও স্থ’ূলতা সংশ্লিষ্ট প্রকল্পগুলোয় পোস্টডক্টরাল গবেষক হিসেবে কাজ করতেন। ২০২০ সালের সাত জুন ভিসা জালিয়াতির অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ওয়াং বর্তমানে নর্দান ক্যালিফোর্নিয়ায় কারাগারে রয়েছেন। তার মামলার শুনানীর তারিখ এখনো নির্ধারিত হয় নি।

নিউরোলজিস্ট সং চেন স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটির একজন পরিদর্শন গবেষক। গত বছরের ১৮ জুলাই তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং এর তিনদিন পরই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। চেনের বিরুদ্ধে ভিসা জালিয়াতি ছাড়াও সরকারের এজেন্সিকে মিথ্যা বিবৃতিসহ আরো কিছু অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। কোন ধরনের প্রমান স্বীকার করা হবে তা নিয়ে আইনজীবিদের বিবাদের প্রেক্ষিতে তার শুনানী স্থগিত রয়েছে।

আরেক বিজ্ঞানী ঝাও কাইকাই ইন্ডিয়ানা ইউনিভার্সিটি বøুমিংটনের একজন পিএইচডি শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি মেশিন লার্নিং ও কৃত্রিম মেধাসত্ত্ব বিষয়ে পড়াশোনা করতেন। ভিসা জালিয়াতি ও মিথ্যা বিবৃতি দেয়ার অভিযোগে গত বছরের জুলাইয়ের ১৮ তারিখে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ঝাও এখনো কারাগারে রয়েছেন। তার শুনানীর তারিখ নির্ধারন করা হয়েছে চলতি বছরের ৪ অক্টোবর।

অভিযুক্ত আরেক বিজ্ঞানীর নাম গুয়ানন লেই। চীনের চাংশার ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব ডিফেন্স টেকনোলজি ইউনিভার্সিটির তিনি একজন পিএইচডি শিক্ষার্থী ছিলেন। লস এঞ্জেলসের ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ায় কম্পিউটেশনাল অপিম্পমাইজেশন বিষয়ে তিনি ভিজিটিং স্কলার হিসেবে পড়াশোনা করছিলেন। ২০২০ সালের ২৭ আগস্ট তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং চলতি বছরের মে মাসে গোয়ান মুক্তি পেয়েছেন। ভিসা জালিয়াতি, মিথ্যা বিবৃতি, ধ্বংসাত্বক কার্যক্রম এবং একটি কেন্দ্রিয় তদন্তের রেকর্ড পরিবর্তনের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। চলতি বছরের ৩১ আগস্ট তার শুনানীর সময় নির্ধারিত হয়েছে।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া ডেভিস স্কুল অব মেডিসিনে রেডিয়েশন অনকোলজি নিয়ে ভিজিটিং রিসার্চার হিসেবে কাজ করেছেন ট্যাং জোয়ান। গত বছরের ২৩ জুলাই তাকে গ্রেফতার করা হয় এবং এর সাত সপ্তাহ পরেই তাকে মুক্তি দেয়া হয়। তার বিরুদ্ধে ভিসা জালিয়াতি ও মিথ্যা বিবৃতি দেয়ার অভিযোগ রয়েছে। চলতি বছরের ২৬ জুলাই তার মামলার শুনানী অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্র: একুশে টিভি
এম ইউ/২০ জুন ২০২১

 

Back to top button