সিলেট

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটের আগেই ‘পরাজিত’ ফেঞ্চুগঞ্জ

সিলেট, ১৮ জুন – চলতি বছরের ১১ মার্চ করোনা সংক্রমিত অবস্থায় সিলেট-৩ আসনের সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস মারা যান। তিনি এ আসনে ছিলেন টানা তিনবারের এমপি। তাঁর মৃত্যুর পর ১৫ মার্চ আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়।

দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জের একাংশ নিয়ে গঠিত আসনটি (সংসদীয় আসন-২৩১) শূন্য ঘোষণার পর উপনির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী হন অন্তত: ৩ ডজন নেতা। এর মধ্যে যেমন ছিলেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, তেমনি ছিলেন প্রবাসী, ব্যবসায়ী, আইনজীবী ও শিক্ষাবিদ। সিলেট-৩ আসনে এমপি হতে আগ্রহীরা ছিলেন দক্ষিণ সুরমা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ- এই তিন উপজেলারই বাসিন্দা। নিজেদের সম্ভাব্য প্রার্থীতা ঘোষণা করে তারা এই তিন উপজেলাজুড়ে ব্যানার-ফেস্টুন টানান। অনেকেই এই করোনাকালে বিভিন্ন রকমের সহায়তা নিয়ে মাঠে কাজ করেন।

কিন্তু এমপি হওয়ার লড়াইয়ে অংশ নিতে গত ১৫ জুন মাত্র ৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এর মধ্যে তিন রাজনৈতিক দলের তিন নেতা ও স্বতন্ত্র তিনজন।

জানা গেছে, এই ছয়জনের মধ্যে ৫ জনই আসনটির দক্ষিণ সুরমা এবং একজন বালাগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা। সে হিসেবে সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণের পরাজিত’ হয়েছে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা।

সিলেট-৩ এ টানা তিনবারের এমপি মরহুম মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস ছিলেন ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা। তাঁর বাড়ি উপজেলার মাইজগাঁও ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামে। টানা ১৫ বছর সিলেটের গুরুত্বপূর্ণ এ আসনের এমপি পদটি ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা বগলদাবা করে রাখলেও এবার সেটি চলে যাচ্ছে বাকি দুই উপজেলার কোনো একটিতে।

উল্লেখ্য, আগামী ২৮ জুলাই সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওই দিন ইভিএম পদ্ধতিতে হবে এ আসনের ভোটগ্রহণ। উপনির্বাচনে লড়তে ৬ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিলেও যাচাই-বাছাই শেষে বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) দুই প্রার্থীর মনোনয়ান বাতিল হয়েছে।

এর আগে গত ১৫ জুন ৬ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন।

তারা হচ্ছেন- আওয়ামী লীগের মনোনীত হাবিবুর রহমান হাবিব, জাতীয় পার্টির মনোনীত আতিকুর রহমান আতিক, স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও বিএনপির সাবেক সাংসদ শফি আহমদ চৌধুরী, স্বতন্ত্র প্রার্থী ফাহমিদা হোসেন লুমা, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মনোনীত জুনায়েদ মুহাম্মদ মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শেখ জাহিদুর রহমান মাসুম।

এদের মধ্যে দাখিলকৃত মনোনয়নে ভোটারদের তথ্য যথাযথ না পাওয়ায় ফাহমিদা ও মাসুমের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। তবে তারা দুজনই আপিল করছেন বলে জানিয়েছেন।

সূত্র : সিলেটভিউ
এম এউ, ১৮জুন

Back to top button