ফুটবল

পেসমেকার বসাতে হচ্ছে এরিকসেনের হৃদযন্ত্রে

আগের থেকে মোটামুটি ভালো আছেন ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন—এ খবর সবারই জানা। কিন্তু, এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ড্যানিশ তারকা। তাঁর হৃদযন্ত্র স্বাভাবিকভাবে সচল রাখার নতুন করে যন্ত্র (এক ধরনের পেসমেকার) বসানো হবে। ডেনমার্ক ফুটবলের বরাত দিয়ে এমনটাই জানিয়েছে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম।

গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে ডেনমার্ক জাতীয় দলের চিকিৎসক মোর্টেন বোয়েসেন জানিয়েছেন, এরিকসেনের হৃদযন্ত্র স্বাভাবিকভাবে রাখতে যন্ত্র বসানো হবে। বিবৃতিতে বোয়েসেন বলেন, ‘ক্রিস্টিয়ানের হৃদযন্ত্রের বিভিন্ন পরীক্ষার পর সিদ্ধান্ত হয়েছে তাঁর শরীরে আইসিডি বসানো উচিত। হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়া রোগীদের এই যন্ত্রটা দরকারি। বিদেশের অনেক চিকিৎসকরাই এই পরামর্শ দিয়েছেন। এরিকসেন নিজেও এই ব্যাপারে সায় দিয়েছেন।’

এরিকসেনের শরীরে ইমপ্ল্যানটেবল কার্ডিওভার্টার ডেফিব্রিলেটর (আইসিডি) বসানো হবে। এটি পেসমেকারের মতো একটি ছোট ইলেকট্রোনিক ডিভাইস, যা কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট প্রতিরোধ করে হৃদস্পন্দন স্বাভাবিক রাখার কাজ করে।

গত শনিবার রাতে ইউরোয় ডেনমার্ক-ফিনল্যান্ড ম্যাচে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মাঠে পড়ে যান এরিকসেন। ওইদিন ম্যাচের ৪০ মিনিটে হঠাৎ কার্ডিয়াক অ্যারেস্টের ফলে মুখ থুবড়ে মাঠে পড়ে যান ইন্টার মিলান ও ডেনমার্কের তারকা ফুটবলার এরিকসেন। তড়িঘড়ি বন্ধ করে দেওয়া হয় খেলা। মাঠে ডাকা হয় চিকিৎসকদের। দ্রুত শুরু হয় হৃদস্পন্দন চালু করার কাজ। যা চিকিৎসার পরিভাষায় ‘কার্ডিও পালমোনারি রিসাসিটেশন’ বা ‘সিপিআর’ হিসেবে পরিচিত। সে সময় এরিকসেনকে আড়াল করে রাখেন ডেনমার্কের খেলোয়াড়েরা। পরে স্ট্রেচারে করে তারকা মিডফিল্ডারকে মাঠের বাইরে নিয়ে যাওয়া হয়। তখন দেখা যায়, জ্ঞান ফিরেছে তাঁর। তড়িঘড়ি তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

হাসপাতাল থেকেই একদিন আগে নিজের অবস্থার কথা জানান এরিকসেন। জানান এখন ভালো আছেন তিনি। ডেনিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন টুইটারে এরিকসেনের ছবি পোস্ট করে তাঁর বার্তা লেখা হয়। সেখানে হাসিমুখে দেখা যায় এরিকসেনকে। সঙ্গে লেখা, ‘হ্যালো সবাই কেমন আছেন। পৃথিবীর নানা জায়গা থেকে আসা শুভেচ্ছাবার্তার জন্য সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। আমি এবং আমার পরিবারের কাছে এটা অনেক কিছু। এই পরিস্থিতিতে আমি ভালো আছি। হাসপাতালে এখনো কিছু পরীক্ষা করাতে হবে, কিন্তু ভালো আছি। এখন ডেনমার্কের আগামী ম্যাচগুলোয় সতীর্থদের উৎসাহ দেব। ডেনমার্কের জন্য পুরোটা নিংড়ে দাও। শুভেচ্ছায়—ক্রিস্টিয়ান।’

সূত্র : আরটিভি
এন এইচ, ১৮ জুন

Back to top button