নেত্রকোনা

সরকারি জায়গা দখল করে আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলার অভিযোগ

নেত্রকোনা, ১৬ জুন- নেত্রকোনা জেলার খালিয়াজুরীতে সরকারি জায়গা দখল করে হাওড় মালেক সিটি ও আবাসন প্রকল্প গড়ে তোলার অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম মালেক মোল্লা কোম্পানির সত্ত্বাধিকারী মো. আব্দুর মালেক। দখলদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন এলাকাবাসী।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, খালিয়াজুরী সদর হাসপাতাল সংলগ্ন সরকারী রাস্তার বি আর এস ৪৪৮৯ দাগের ১.৪০ একর, বি আর এস ৪৭০০ দাগের ০.৬৩ একর, বি আর এস ৪৪৮৭ দাগে ২.৫০ একর, বি আর এস ৪৪৮৮ দাগে ০.৫০ একর, বি আর এস ৪৪৭২ দাগে ০.৪৪ একর, বি আর এস ৪৪৭৩ দাগে ০.২৮ একর, বি আর এস ৪৪৭৪ দাগে ০.১৪ একর এবং বি আর এস ৪৭০২ দাগে ১.৫৯ একর মোট ৭.৪৮ একর জায়গা বালি ভরাট করে গ্রাহকদের মধ্যে প্লট আকারে বিক্রি করেছেন অভিযুক্ত মোল্লা কোম্পানি। হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকা।

খালিয়াজুরী সদরের সরকারী হাসপাতালের সীমানা প্রাচীর থেকে বাজার পর্যন্ত রাস্তায় স্থাপিত সিসি ব্লকের ওপর বালি ভরাট করে দোকানের পজিশন হস্তান্তর করেন। এখান থেকেউ তিনি হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকা।

অভিযোগ কারীরা বলেন, কোম্পানি স্থানীয় প্রতিনিধি মো. মিরাস আলীর মাধ্যমে সরকারী জায়গা বিভিন্ন কৌশলে দখলে লিপ্ত রয়েছে কোম্পানিটি। দুদক, স্থানীয় সাংসদ, বিভাগীয় কমিশনার, ইউএনও, সহকারী ভূমি কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করলেও কোনো ফল পাওয়া যাচ্ছে না।

হাওড় মালেক সিটির সত্ত্বাধিকারী মো. আব্দুর মালেকের কাছে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি। মোল্লা কোম্পানির ব্যবস্থাপক পার্থ সারথি সিংহ পাবেল বলেন, বিভিন্ন জনের কাছ থেকে জমি ক্রয় করেছেন মালেক মোল্লা। উল্লেখিত দাগের কিছু জায়গা সরকারি খতিয়ানেও রয়েছে। কোম্পানি সরকারের বিরুদ্ধে ৩১ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন আদালতে। আমরা রায়ের অপেক্ষায় আছি।

এ বিষয়ে খালিয়াজুরী সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো. ছানোয়ারুজ্জামান তালুকদার জোসেফ বলেন, আমরা জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছি। জেলা প্রশাসক বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা।

তিনি আরো বলেন, সরকারী হাসপাতালের ২০ ফুট দেয়ালসহ আরও ৪০ ফুট জায়গা মোল্লা কোম্পানি প্লট আকারে বিক্রি করেছে।

অভিযোগের ভিত্তিতে খালিয়াজুরী উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাহিদ হাসান খান বলেন, এই সম্পত্তিতে দীর্ঘ দিন মোল্লা কোম্পানি অবস্থান এবং আদালতে মামলা চলমান থাকায় কোন আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হচ্ছে না।

তথ্যসূত্র: আরটিভি
এস সি/১৬ জুন

Back to top button