জাতীয়

জনগণকে বিভ্রান্ত করতেই খালেদার জন্ম তারিখ নিয়ে রিট: ফখরুল

ঢাকা, ১৪ জুন – জনগণকে বিভ্রান্ত করতেই খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখ নিয়ে রিট করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে উচ্চ আদালতে খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখের নতি তলবের বিষয়টি নিয়ে প্রতিক্রিয়ায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, যে বিষয়টার (বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্ম তারিখ) কথা বলা হয়েছে- এটা তো ফেইক। এভারকেয়ারের যে রিপোর্টের কথা বলা হয়েছে, এই ধরণের কোনো রিপোর্টই এভারকেয়ার করে নাই। যে তারিখটা বসিয়েছে তারা- এটা ফলসলি করা হয়েছে। যে কাগজটা তারা দিয়েছে যার উপরে আদালত একটা হুকুম দিয়েছে। এই হুমকটা আমি জানি না বিং এ ল‘ইয়ার.. একটা কিভাবে দিলেন?

দেশে তো রাজনীতি নেই মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, এখন উদ্দেশ্যই তাদের একটাই- এই ধরণের (জন্মদিন) ইস্যুগুলো তুলে এনে জাতিকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করা, ডায়ভার্ট করার চেষ্টা করা, মূল সমস্যা থেকে জনগণকে ভুল দিকে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা। আর কিছুই না। ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য এসব তারা করছে।

দেশে দুর্ভাগ্যজনকভাবে একদলীয় শাসনে চলছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, এটা থেকে প্রমাণিত হয়- জুডিশিয়রি ইজ নট ফ্রি। জুডিশিয়ারির কিন্তু এটা আমলেই নেয়া উচিত ছিলো না। দে শুড হেল বিন টোটালি রং। আর যে ভদ্রলোক করেছেন সে তো পারসোনালি সংক্ষুব্ধ না। আমি যতটুক আইন বুঝি, রিটটা তখনই হতে পারে ইফ এনি ওয়ান ইজ পারসোনালি এফগ্রিভ। ব্যক্তিগতভাবে যদি সে ক্ষতিগ্রস্থ হয়, নিজে সংক্ষুব্ধ হয় তখন হি কেন গো ফর এ রিট। এটা তা না। উনার জন্মদিনের ব্যাপারে কি আছে, না আছে এটা তো তাদের দায়িত্ব না।

বাংলাদেশে বহুলোকের জন্ম তারিখ আসল একটা আর সার্টিফিকেটে তারিখ আরেকটা আছে উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, বিশেষ করে আমাদের জেনারেশনের সময়ে তখন সঠিকভাবে বাবা-মায়ের জন্ম তারিখ মনে রাখতে পারতেন না- জন্ম কবে হয়েছে, ডায়েরি-টায়েরি ম্যানটেইন করতেন না। ফলে দুই রকম হতে পারে। এটা কোনো দিন ইস্যু হতে পারে না।

তিনি বলেন, এখন পার্টিকুলার একটা ডেটে কেউ জন্ম নিতে পারবে না- এটা একটা ঘোষণা দিয়ে দিলে তো হয়ে যায়। হিসাব করে আপনাকে ওইদিন ছাড়া সন্তানের জন্মদিনের কথা চিন্তা করতে হবে। এছাড়া তো উপায় নাই।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ১৪ জুন

Back to top button