ময়মনসিংহ

স্ত্রী-শ্যালিকাকে ভারতে পাচারের অভিযোগ

ময়মনসিংহ, ১২ জুন – ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার রসুলপুর গ্রামের আজিজুল হকের দুই মেয়ে কুলসুম আক্তার (২২) ও সুরাইয়া আক্তার (১৯)। তাদের মধ্যে কুলসুমকে প্রথমে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করেন ইউসুফ মিয়া। পরে স্ত্রী ও শ্যালিকা দুইজনকেই মোটা অঙ্কের বেতনের চাকরির লোভ দেখিয়ে ভারতে পাচার করে দেন। বিনিময়ে পান ৪০ হাজার টাকা করে।

অবশেষে এ ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী ইউসুফ মিয়া (২৬) ও তার সহযোগী রাব্বিল শেখকে (২৮) আটক করেছে র‌্যাব-১৪। আজ শনিবার দুপুরে ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪ এর প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন র‌্যাব-১৪ এর অধিনায়ক আবু নাঈম মো. তালাত।

র‌্যাব-১৪ অধিনায়ক বলেন, এ ঘটনায় আজিজুল হক গত ৫ জুন গাজীপুরের শ্রীপুর থানায় একটি মানবপাচারের মামলা করলে র‌্যাব বিষয়টিকে গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করে। পরে গতকাল শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে এ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী ইউসুফকে গফরগাঁও উপজেলার রসুলপুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে ও তার সহযোগী রাব্বিলকে শ্রীপুর থেকে আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে স্বর্ণালংকারসহ দুই লাখ ২৪ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-১৪ এর অধিনায়ক আরও বলেন, প্রাথমিক তদন্তে মানবপাচার চক্রের সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। দীর্ঘ দিন ধরে এই চক্রটি ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে ভারতে নারী পাচার করে আসছে। চক্রের অন্যান্যদেরও আটকের চেষ্টা চলছে।

আটক ইউসুফ ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার বালিহাটা কান্দাবাড়ি গ্রামের রইজ উদ্দিনের ছেলে এবং রাব্বিল শেখ নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার পেড়লী গ্রামের মসলেম শেখের ছেলে বলে জানা গেছে।

সূত্র: আমাদের সময়
এম ইউ/ ১২ জুন ২০২১

Back to top button