জাতীয়

টিকা উৎপাদনে বাধ্যবাধকতা প্রত্যাহার চেয়েছে বাংলাদেশ

ঢাকা, ০৫ জুন – করোনা ভাইরাস নির্মূলে টিকা, ওষুধ ও চিকিৎসাসামগ্রী উৎপাদনের ক্ষেত্রে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার ট্রিপস চুক্তির বাধ্যবাধকতাগুলো সাময়িকভাবে প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি এসব চিকিৎসাসামগ্রীর উৎপাদন বাড়িয়ে তা দ্রুত দরিদ্র ও উন্নয়নশীল দেশগুলোয় পৌঁছে দিতেও আহ্বান জানানো হয়। সদ্যসমাপ্ত বিশ্ব স্বাস্থ্য সম্মেলনের ৭৪তম অধিবেশনে বাংলাদেশ এ আহ্বান জানায়।

গতকাল শুক্রবার জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশন থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল কোভিড-১৯ ও এর আর্থসামাজিক প্রভাব মোকাবিলায় যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন, টিকা প্রদান সংক্রান্ত কার্যক্রম এবং প্রণোদনা প্যাকেজসহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের বিভিন্ন কার্যকর উদ্যোগ সম্পর্কে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবহিত করে।

গত ২৪ মে থেকে ১ জুন সুইজারল্যান্ডের জেনেভা থেকে ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সম্মেলনের ৭৪তম অধিবেশন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেকের নেতৃত্বে ও জেনেভাস্থ বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল এই ভার্চুয়াল অধিবেশনে যোগ দেয়।

এবারের সম্মেলনে কোভিড-১৯ সংকট মোকাবিলায় টিকা উৎপাদন, সরবরাহ ও সুষম বণ্টনের বিষয়টি বিশেষভাবে প্রাধান্য পায়। সম্মেলনে বাংলাদেশ ওয়ান হেলথ গ্লোবাল লিডার্স গ্রুপ অন অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্সের কো-চেয়ার হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃস্থানীয় ভূমিকার কথা তুলে ধরে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স মোকাবিলায় বৈশ্বিক সচেতনতা বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করে। সেই সঙ্গে বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নয়ন ও একটি শক্তিশালী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গড়ে তুলতে টেকসই অর্থায়ন নিশ্চিতকরণের ওপর জোর দেয়। সম্মেলনে জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মো. মোস্তাফিজুর রহমান বাংলাদেশসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের ১১টি দেশের পক্ষ থেকে মানসিক স্বাস্থ্য ও অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্সের ওপর দুটি যৌথ বিবৃতি প্রদান করেন। এবারের সম্মেলনে স্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ের ওপর মোট ৩৫টি প্রস্তাব ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

সূত্র : আমাদের সময়
এন এইচ, ০৫ জুন

Back to top button