শিক্ষা

এমপিওভুক্তিতে বরাদ্দ ৩০০ কোটির বেশি

এস এম আব্বাস

ঢাকা, ০৪ জুন – আসন্ন ২০২১-২০২১ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির সুযোগ রেখে বরাদ্দ চেয়েছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বরাদ্দ চাওয়ার বিপরীতে অর্থ মন্ত্রণালয় সেই বরাদ্দ সিলিং করে দিয়েছিল আগেই। সেই বরাদ্দ থেকে প্রায় ৩০০ কোটি টাকা এমপিওভুক্তির জন্য ব্যয় করতে পারবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) জাতীয় সংসদে সিলিং করা বরাদ্দ প্রস্তাবিত বাজেটে উত্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বাজেট বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, আগামী ২০২১-২০২২ অর্থবছরে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা খাতে ৩৬ হাজার ৪৮৬ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রস্তাব করছি। কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষার জন্য ২০২১-২০২২ অর্থবছরে ৯ হাজার ১৫৩ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রস্তাব করছি। সেই হিসেবে মোট বরাদ্দ ৪৫ হাজার ৬৩৯ কোটি টাকা।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সংশ্লিষ্ট উইং থেকে জানা গেছে, ‘নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য প্রথমে ২০০ কোটি টাকা সিলিং করে দেওয়া হয়েছিল। পরে আবার তা বাড়ানো হয়। এ ছাড়া অন্যান্য খাত থেকে এমপিওভুক্তির খাতে নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। সব মিলিয়ে প্রায় ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দ থাকবে নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য। মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ দেশের ৬০০ থেকে ৮০০ নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শিক্ষাস্তর এমপিওভুক্তির টার্গেট নিয়ে বরাদ্দ চেয়েছিল এবার।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, ‘আমরা নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে চাই। নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য সুযোগ রেখে বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে। এ ছাড়া রিভাইজ বাজেটেও বরাদ্দ চাইবো।’

কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিবের পিএস উপ-সচিব মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসান জানান, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগ নতুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ চাইলেও ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ১০ বছর বন্ধ থাকার পর ২০১৯ সালে ২৩ অক্টোবর একযোগে দুই হাজার ৭৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্ত করে তালিকা প্রকাশ করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এরপর ওই বছরের ১২ নভেম্বর ছয়টি এবং ১৪ নভেম্বর একটি প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হয়। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শর্ত পূরণ না করতে পারায় এমপিওভুক্তির তালিকা থেকে বাদ পড়ে।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন
এম ইউ/০৪ জুন ২০২১

 

Back to top button