ফুটবল

রিয়াল-রামোস দ্বন্দ্ব

২০১৪ সালের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালের ম্যাচ। নির্ধারিত সময়ের শেষ মুহূর্তের খেলা চলছে। ১-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। শিরোপার গন্ধ পাচ্ছিল দলটি। উৎসবের সব আয়োজনও প্রায় সেরে ফেলেছিল তারা। ঠিক এমন সময়ই দারুণ হেডে গোল দিয়ে রিয়াল মাদ্রিদকে ম্যাচে ফেরান সের্জিও রামোস। পরের গল্প সবারই জানা। লা দেসিমা ঘরে তুলে নেয় লস ব্লাঙ্কোসরা।

দুই বছর আবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে সেই অ্যাতলেতিকোর বিপক্ষে জয়ের নায়কও সেই রামোস। এমন দুটি ম্যাচই নয়, রিয়ালের অনেক অনেক যুদ্ধজয়ের মূল কারিগর এ ডিফেন্ডার। রক্ষণ সামলেছেন পাশাপাশি আক্রমণেও সাহায্য করেছেন। অথচ সেই রামোসের ওপরই এখন বেজায় ক্ষিপ্ত রিয়াল কর্তৃপক্ষ। তাকে যেন ক্লাব থেকে বিদায় করতে পারলেই বাঁচেন তারা। এমন সংবাদই প্রকাশ করেছে স্প্যানিশ রেডিও স্টেশন ওন্দা সেরো।

এরই মধ্যে রিয়ালের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ ফুরিয়েছে রামোসের। কাগজে-কলমে এখন আর রিয়ালের খেলোয়াড় নন তিনি। তবে নতুন চুক্তি করে রিয়ালেই থাকতে চাইছেন এ তারকা। কিন্তু বনিবনা হচ্ছে ক্লাবের সঙ্গে। রিয়ালের প্রস্তাব অনুযায়ী বেতন-ভাতা কমানোর বিষয়ে ছাড় দিয়েছিলেন, কিন্তু চুক্তিটা চেয়েছিলেন দুই বছরের জন্য। কিন্তু ৩৫ পেরোনো এ ডিফেন্ডারকে এক বছরে রাখতে চাইছেন ক্লাব সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। দ্বন্দ্বের শুরু এখান থেকেই।

এদিকে রামোসের চুক্তি না বাড়িয়ে চলতি মৌসুমে বায়ার্ন মিউনিখের ডেভিড আলাবাকে দলে ভিড়িয়েছে রিয়াল। বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা এ ডিফেন্ডারকে তারা বছরে ১২ মিলিয়ন ইউরো বেতন দিচ্ছে। সঙ্গে নানা বোনাস তো রয়েছেই। এটাও মানতে পারছেন না রামোস। ক্লাবের হয়ে এত কিছু দেওয়ার পরও তাকে বেতন কমাতে বলা হয়েছে, অন্যদিকে বায়ার্নে বছরে ৮ মিলিয়ন বেতন পাওয়া খেলোয়াড়ের বেতন বাড়ছে এক লাফে দেড় গুণ।

সূত্র : প্রতিদিনের সংবাদ
এন এইচ, ০৪ জুন

Back to top button