বিচিত্রতা

বিমার অর্থ পেতে মরণনাটক, প্রাণ গেল স্ত্রী-সন্তানের!

তিন বছর বয়সী মেয়ের চিকিৎসার জন্য বেশ কিছু অর্থ ধার করেছিলেন চীনের এক নাগরিক। তা আর শোধ করতে পারছিলেন না। তাই বিমা প্রতিষ্ঠান থেকে দেড় লাখ ডলার পেতে নিজের মৃত্যু–নাটক সাজান। কিন্তু এতে হিতে বিপরীত হয়েছে। তাঁকে হারাতে হয়েছে স্ত্রী ও দুই শিশুসন্তানকে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের হুনান প্রদেশের সিনহুয়া কাউন্টিতে ১২ অক্টোবর হি (৩৪) নামের এক ব্যক্তি পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। এর এক দিন আগে ১১ অক্টোবর ওই ব্যক্তির স্ত্রী (৩১) চার বছর বয়সী ছেলে ও তিন বছর বয়সী মেয়েকে নিয়ে আত্মহত্যা করেন। আত্মহত্যার আগে ওই নারী চীনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ‘উইচ্যাটে’ আত্মহত্যার নোট পোস্ট করে যান।

সিনহুয়ার পুলিশ চায়না রেডিওকে বলেন, চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে হি প্রায় দেড় লাখ ডলারের একটি বিমা করেন। পরে ১৯ সেপ্টেম্বর তিনি ধার করা একটি গাড়ি নিয়ে নদীতে ঝাঁপ দেন। এর পর থেকে তাঁকে (হি) আর পাওয়া যায়নি। তিনি আসলে মৃত্যুর নাটক সাজিয়ে বিমা প্রতিষ্ঠান থেকে অর্থ পেতে চেয়েছিলেন।

পুলিশ বলছে, সংগত কারণেই ধরে নেওয়া হয়েছে হি ওই গাড়ি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। তিনি যে বিমা করিয়েছিলেন তাতে নমিনি (উপকারভোগী) করা হয়েছে স্ত্রীকে। কিন্তু হি তাঁর স্ত্রীকে এই বিমা বা মৃত্যু-নাটক সম্পর্কে কিছুই জানাননি। ফলে তাঁর স্ত্রী স্বামীর মৃত্যুতে ভেঙে পড়েন এবং আত্মহত্যার প্রস্তুতি নেন।

১১ অক্টোবর হি-র স্ত্রী ‘উইচ্যাটে’ তাঁর আত্মহত্যার নোট পোস্ট করেন। তিনি লেখেন, ‘আমরা চার সদস্যের পরিবার একসঙ্গে থাকতে চাই। আমরা অচিরেই হি-র সঙ্গে মিলিত হচ্ছি।’ এর পরপরই বাড়ির পাশের পুকুর থেকে ওই নারী ও তাঁর দুই সন্তানের লাশ পাওয়া যায়।

পুলিশ বলছে, স্ত্রী ও সন্তানের মৃত্যুর খবর জানার পর লুকিয়ে থাকা হি পুলিশের কাছে ধরা দেন। ধরা দেওয়ার আগে তিনি ‘উইচ্যাটে’ তাঁর এই মৃত্যু-নাটক সাজানোর কথা জানিয়ে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। ওই ভিডিওতে দেখা যায়, হি অনবরত কাঁদছেন আর বলছেন, তাঁর তিন বছর বয়সী মেয়ে মৃগী রোগে আক্রান্ত। তার চিকিৎসার জন্য তিনি অনেক টাকা ঋণ করেছেন। আর এই ঋণ শোধ করতেই তিনি নিজের মৃত্যুর নাটক সাজিয়েছিলেন।

সিনহুয়ার পুলিশ বলছে , হি-র ঋণের পরিমাণ ১৫ হাজার ডলারের মতো। পুলিশ উইচ্যাটে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, হি-র বিরুদ্ধে তারা বিমা জালিয়াতি ও পরিকল্পিতভাবে সম্পদ ধ্বংসের অভিযোগ এনেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, হি-র এই ভিডিও চীনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ওয়েইবুতে ব্যাপক হারে ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে এই ভিডিও তিন কোটিবারের মতো দেখা হয়েছে। এ নিয়ে চলছে নানা ধরনের আলোচনা-বিশ্লেষণ। অনেকেই এই ঘটনাকে দেখছেন চীনা নাগরিকদের ব্যক্তিগত সম্পদ ও পারিবারিক সংকটের চিত্র হিসেবে।

এম এন / ০৩ জুন

Back to top button