অভিমত/মতামত

বিল গেটস, জেফ বেজোস বিবাহবিচ্ছেদ সমাচার!

সুমন ভট্টাচার্য

বিল গেটস আর জেফ বেজোস| দুই ধনকুবের| দুই টেকনোক্র্যাট| পৃথিবীর সবথেকে দুটো বড় কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা এবং মালিক| তাঁরা কিনা বিয়ে ভাঙলেন? এবং সেই বিয়ে ভাঙার পিছনে পরকীয়া? অন্য মহিলার প্রতি দুর্নিবার আকর্ষণ?

তাহলে ‘ভাল’রা, দুনিয়ার সবথেকে ভাল থাকা মানুষরা ভাল নেই?

বিশ্বের সবথেকে ধনী দম্পতিদের জীবনেও বিচ্ছেদ আসে? এবং সেই বিচ্ছেদের কারণ হন অন্য নারী? কোনো টেলিভিশন অ্যাঙ্কর কিংবা স্বামীর অফিসের কোনো অধস্তন সহকর্মী?

আমি নিশ্চিন্ত শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, যিনি দেবদাস কিংবা চরিত্রহীন লিখে প্রেম, পরকীয়া এবং ভালবাসার পাঠ আমাদের দিয়ে গিয়েছেন, তিনি পর্যন্ত বিলিয়ন বিলিয়ন ডলারের এই বিচ্ছেদগাথা লিখতে পারতেন না| সম্পর্কের এই টানাপোড়েন, হাজার হাজার কোটির মালিকের যৌনতার প্রতি এই অপ্রতিরোধ্য আকর্ষণকে শব্দে ব্যাখ্যা করতে পারতেন না| বরং রোমান্সের মহানায়ক শাহরুখ খানের একটা আইকনিক সংলাপকে মনে পড়ে যেতে পারে, ‘বড়ি বড়ি দেশমে অ্যায়সি ছোটি ছোটি চিজ হো যাতি হ্যায়…!’

তা না হলে কি করে ব্যাখ্যা করা যাবে বিল গেটসের ডেটিং এর গল্পকে? একজন মহিলা সহকর্মীর শুধুমাত্র প্রেজেন্টেশন দেখেই মুগ্ধতা, মেইল করে দেখা করতে চাওয়ার আকাঙ্খা কিংবা ফ্লাইট মিস করে অপেক্ষার কাহিনী ‘নিউইয়র্ক টাইমস’-এ পড়ছি বলে তো মনে হচ্ছে না, বরং রিচার্ড গেরে আর শ্যারন স্টোনের সেই বহুচর্চিত ছবি ইন্টারসেকশন দেখছি বলে ভ্রম হচ্ছে| তাহলে বিল গেটসের যে এতদিন ধরে তৈরি ভাবমূর্তি, প্রায় মুনি-ঋষিদের মতো জীবনযাপনের গল্প, সেই পুরোটাই একটা নির্মাণ? carefully crafted camouflage?

আমাদের মনে রাখতে হবে, বিল গেটস শুধু মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বা মালিক নন, এই বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা, বিল এন্ড মিলিন্দা গেটস ফাউন্ডেশনের প্রধান| শুধুমাত্র তাঁর স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সাহায্য পাওয়ার জন্য বিশ্বের যে কোনো দেশের রাষ্ট্রপ্রধান মুখিয়ে থাকেন| আর সেই বিল গেটস কিনা তাঁরই সংস্থার কোনো মহিলা ম্যানেজারের সান্নিধ্য পাওয়ার জন্য উন্মুখ? পরকীয়ার এই মহাকাব্য কি হলিউডের কোনো সিনেমাও কোনোদিন দেখাতে পেরেছে?

বিল আর মিলিন্দা গেটসের ২৭ বছরের বিয়ে ভেঙে যাওয়ার গল্প যদি এই পৃথিবীর, আজকের দুনিয়ার সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর বিবাহবিচ্ছেদের কাহিনী হয়, তাহলে আমাজনের মালিক জেফ বেজোসর তাঁর স্ত্রী ম্যাকেঞ্জি টার্টলের সঙ্গে সম্পর্কছেদ এবং টেলিভিশন অ্যাঙ্কর লরেন স্যাঞ্চোজের প্রেমকে কোনো ওয়েবসিরিজে ধরাও মুশকিল| কারণ এত দেশ আর আন্তর্জাতিক রাজনীতির এমন সব ঘটনা জড়িয়ে আছে যে, নেটফ্লিক্স বা বেজোসর নিজের মালিকানাধীন আমাজনের পক্ষেও ক্যামেরাবন্দি করা কঠিন|

যেমন ধরুন, বেজোস হচ্ছেন আমেরিকার সবচয়ে প্রভাবশালী সংবাদপত্র ওয়াশিংটন পোস্টের মালিক, আর সেই কাগজের কলমচি ছিলেন সৌদি সাংবাদিক খাসোগি| খাসোগি যেহেতু সৌদি যুবরাজ এমবিএস বা মহম্মদ বিন সুলেমানের কট্টর সমালোচক ছিলেন, তাই এই সৌদি সাংবাদিক শুধু ইস্তাম্বুলে খুন হলেন না, এমবিএস জেফ বেজোসর অ্যাপল আই ফোনকে হ্যাক করে আমাজনের মালিকের তাঁর টেলিভিশন অ্যাঙ্কর বান্ধবীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মূহুর্তের ছবি পেয়ে গেলেন| জেফ বেজোসর অভিযোগ, সৌদি যুবরাজের ঘনিষ্ঠ মহলের মাধ্যমে সেই ছবি চলে গেল আমেরিকাতে, প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শিবিরের কাছে| আমাজন এবং ওয়াশিংটন পোস্টের উপর হাড়ে-চটা ট্রাম্প আবার সেই ছবি ঠেলে দিলেন দক্ষিণপন্থী পত্রিকাগুলোর দিকে| আমাজনের সিইও’র সেই অন্তরঙ্গ মূহুর্তের ছবি ছাপা হওয়ামাত্র মার্কিনমূলূকে হুলুস্থুলু, বেজোস এবং তাঁর স্ত্রী ম্যাকেঞ্জি বিবাহবিচ্ছেদের ঘোষণা করলেন| যে বিবাহবিচ্ছেদের পরে ম্যাকেঞ্জি পেলেন আমাজনের প্রায় ২৫ শতাংশ শেয়ার, মূল্যের দিক থেকে ৩৫.৬ বিলিয়ন ডলার|

গত তিরিশ বছর ধরে বিল গেটস বা জেফ বেজোস’কে নিয়ে যত রিপোর্ট লেখা হয়েছে, যত ডকুমেন্টারি হয়েছে, সেখানে কোথাও তাঁদের প্রেম বা যৌনতা আলোচিত হয়নি| এমনকি বই বেচা দিয়ে যে আমাজনের পথচলার শুরু, সেই আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে জেফ বেজোস নিজের পছন্দের যে বই বেছেছিলেন,সেখানেও কোনো রোম্যান্টিক উপন্যাস নেই| বরং ম্যানেজমেন্টের রুল বুক আছে, জাপানি লেখকের উপন্যাস আছে| সেই বেজোসই কি না নিজের জীবন দিয়ে এমন আখ্যান তৈরি করলেন, যা মার্কিনি বেস্টসেলার ‘ফিফটি শেডস অফ গ্রে’কেও পিছনে ফেলে দেবে?

বিচ্ছেদ,যন্ত্রণা আর নিজের একদা প্রিয় পুরুষের সঙ্গে অন্য নারীকে দেখার অভিজ্ঞতা নিয়ে সেরা গান কোনটা? গুগল বলে বিয়ন্সের সেই বিখ্যাত গানটা, ‘so go ahead and get gone/ call up the chick and see if she is home.’ আজকের প্রজন্ম অবশ্য বিশ্বাসভঙ্গের যন্ত্রণা ভুলতে দুই হার্টথ্রব, টেলর সুইফট এর should’ve said no বা এড শিরানের শার্টস্লিভস শোনে| বিল গেটসের প্রাক্তন মেলিন্দা বা বেজোসর বিবাহবিচ্ছিন্না স্ত্রী ম্যাকেঞ্জির জন্যে আমি নিজের পছন্দের একটা গান মনে করিয়ে দিতে পারি| প্রাক্তন সিনেমায় যেটা গেয়ে ইমন চক্রবর্তী জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন: ‘তুমি অন্য কারোর সঙ্গে বেঁধো ঘর…!’

এন এইচ, ২৮ মে

Back to top button