মাদারীপুর

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যেই আজ কালকিনি পৌরসভায় ভোট

মাদারীপুর, ৩১ মার্চ – মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভা নির্বাচনে আজ বুধবার ভোটগ্রহণ। তবে এবারের নির্বাচন নিয়েও রয়েছে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। ভোটার ও প্রার্থীরা চাইছেন সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের নিশ্চয়তা। নির্বাচন কমিশনকে মাঠপর্যায় ঠিক রাখতে কঠোর হওয়ার দাবিও উঠেছে।

জানা গেছে, মাদারীপুরে চারটি পৌরসভার মধ্যে কালকিনি পৌরসভার আয়তন সবচেয়ে বেশি। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ছিল নির্বাচনের নির্ধারিত তারিখ। দফায় দফায় সংর্ঘষ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মসিউর রহমান সবুজের ‘নিখোঁজের’ ঘটনাসহ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিতে ১২ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। পরে ৩১ মার্চ স্থগিত হওয়া নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন : মাদারীপুরে আলোচনায় কাদের মির্জার ছেলে তাশিক মির্জা

এই পৌরসভায় মেয়র পদে পাঁচজন প্রার্থী থাকলেও কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক বিএনপির প্রার্থী ইতোমধ্যেই প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। বাকি প্রার্থীদের প্রচারণায় মুখর ছিল গত কয়েকদিন। দিন-রাত একাকার ছিল প্রার্থীদের প্রচারণা।

নির্বাচনে সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছেন ভোটাররা। ভুরঘাটা এলাকার ভোটার হারুন-অর-রশিদ বলেন, ‘আমরা এবারও আতঙ্কিত ভোট সঠিকভাবে দিতে পারবো কিনা। যেভাবে প্রার্থীর সমর্থকরা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছেন তাতে সঠিকভাবে ভোট দেয়া নিয়ে সংশয় দেখা দিচ্ছে। আমরা চাই ভোটের দিনে সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে।’

তবে নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন হলেও ভোটের দিনের পরিবেশ নিয়ে শঙ্কিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মসিউর রহমান সবুজ। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘নৌকার প্রার্থীর লোকজন মঙ্গলবার রাতেও আমার বাড়িতে বোমা নিক্ষেপ করেছে। আমি শঙ্কিত ভোটাররা ঠিকমতো ভোট দিতে পারবেন কিনা! প্রশাসন যদি ঠিকমতো ভোটের পরিবেশ বজায় রাখতে পারে, তাহলে আমার জয় সুনিশ্চত।’

আর সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য আওয়ামী লীগের প্রার্থী এসএম হানিফ নৌকা প্রতীকে ভোট দাবি করেন। তিনি বলেন, ‌‘নৌকা প্রধানমন্ত্রীর প্রতীক, তিনি আমাকে দিয়েছেন উন্নয়নের জন্য। আর নৌকা জয়ী হলে প্রধানমন্ত্রীর জয় হবে। সে কারণে এই অঞ্চলের লোকজন নৌকায় ভোট দেবেন। আমরা কারো বাড়িতে বোমা বা কোনো ধরণের অসামাজিক কাজ করিনি, করবোও না।’

নির্বাচন সুষ্ঠু করার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন অঙ্গীকারবদ্ধ জানিয়ে কালকিনির নির্বাচন কর্মকর্তা শেখ বদরুদ্দিন বলেন, ‘আমরা সুষ্ঠু নির্বাচন পরিচালনার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি শেষ করেছি। আশা রাখি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

উল্লেখ্য, কালকিনি পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ৩৩ হাজার ৪০০ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার ১৬ হাজার ৭০০ জন ও পুরুষ ভোটার ১৭ হাজার ৩০০ জন। এই পৌরসভায় ভোট হবে ইভিএমে। মেয়র পদে পাঁচজন, সংরক্ষিত নারী পদে ১১ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৬ জন প্রার্থী ভোটযুদ্ধে মাঠে থাকবেন।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ৩১ মার্চ

Back to top button