পশ্চিমবঙ্গ

বিজেপির একজন মরলে তৃণমূলের চার জনকে মারব

কলকাতা, ১৪ অক্টোবর- এবার তৃণমূল নেতাদের কার্যত খুনের হুমকি দিলেন রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি বিশ্বপ্রিয় রায় চৌধুরী। তাঁর বক্তব্য, বিজেপির একজন মরলে তৃণমূলের চার জনকে মারব।

দিলীপ ঘোষ ও সায়ন্তন বসুদের পর এবার দলের সদর দফতরে বসে তৃণমূল কংগ্রেসকে তীব্র আক্রমণ করলেন বিশ্বপ্রিয় রায়চৌধুরী। হুমকি দিয়ে বললেন, “কেরলে এক সময় বিজেপি-আরএসএস কর্মীদের গাড়িতে আক্রমণ এবং হত্যা করা শুরু করেছিল সিপিএম। তখন সেখানে সঙ্ঘের স্বয়ংসেবকরা একের বদলে চার হবে বলে ঠিক করেছিলেন। এ রাজ্যেও আমাদের উপর আক্রমণ চললে একের বদলে চার হবে। সেই চারে তৃণমূলের জেলা এবং রাজ্য নেতাদের বেছে নেব আমরা। তৃণমূল সামলাতে পারে সামলাবে।”

আরও পড়ুন: কলকাতার বেলেঘাটায় ক্লাবে ভয়াবহ বিস্ফোরণ

রবিবার দলীয় কর্মসূচি সেরে ফেরার পথে বিজেপির মুর্শিদাবাদ দক্ষিণের জেলা সভাপতি গৌরীশঙ্কর ঘোষের গাড়িতে বোমা মারা হয় বলে অভিযোগ। ৪ অক্টোবর ব্যারাকপুরের বিজেপি নেতা মণীশ শুক্ল খুন হন। এ সবের প্রেক্ষিতে বিশ্বপ্রিয় সোমবার এই হুমকি দেন বিশ্বপ্রিয়।

বঙ্গ বিজেপি নেতার ওই মন্তব্যের কথা প্রকাশ্যে আসতেই রাজ্য রাজনীতিতে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেভাবে পরিষ্কার ভাষায় বিজেপি কর্মীদের একজনের উপর হামলা হলে শাসকদলের চারজনকে আক্রমণ করার কথা বিশ্বপ্রিয়বাবু বলেছেন তাতে আরও উত্তেজনা ছড়াবে।

তৃণমূল নেতা কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “গুন্ডামি তো করছে বিজেপি! তার প্ররোচনা এবং পরিকল্পনা চলছে রাজভবন থেকে। তবে এটা বাংলা। প্রতিরোধ হবে।”

কংগ্রেস- সিপিএম, দুই দলই এই বিজেপি নেতার মন্তব্যের কড়া নিন্দা করেছে। কংগ্রেসের আব্দুল মান্নান বলেন, “বিজেপি নেতার হুমকি নিন্দনীয়। কিন্তু বিজেপি এবং তৃণমূল, দুটো দলই লুম্পেনদের নিয়ে খুনোখুনি, হুমকি-এ সবের উপর চলে।”

সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, “গণতন্ত্রে সকলের কথা বলার অধিকার আছে। কিন্তু এমন হুমকি এবং গুন্ডামি মানা যায় না।”

সূত্র: কলকাতা২৪x৭

আর/০৮:১৪/১৩ অক্টোবর

Back to top button