পশ্চিমবঙ্গ

কালো টাকা সাদা করার ওয়াশিং মেশিন বিজেপি: মমতা

কলকাতা, ০৪ ফেব্রুয়ারি – ফের নাম না করে শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, বৈশালী ডালমিয়াদের মতো তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া নেতা-নেত্রীদের ফের আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বললেন, বিজেপিতে অনেক গদ্দাররা যাচ্ছে নিজেদের টাকা-সম্পত্তি বাঁচাতে৷

মমতা বললেন, ‘সিরাজদৌল্লাকে মানুষ সম্মান করে। কিন্তু, মীরজাফরকে কেউ সম্মান করে না। বাংলা তো অনেক ভালো আছে। দেখুন, পরিযায়ী শ্রমিকদের একটা টাকা দেয়নি ওরা, অথচ চোরগুলিকে দিল্লি নিয়ে যাচ্ছে বিমান ভাড়া করে। এ-টু জেড চোরেদের নিয়ে যাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘ত্রিপুরা ফর্মুলায় এখানে বিজেপি ভেবেছে, তৃণমূলের কয়েকটি গদ্দারকে নিয়ে সরকার তৈরি করবে।

এরপরই তিনি বলেন, ‘যাঁরা দাঙ্গা করে তাঁরা যান। যাঁদের দু’নম্বরি টাকা আছে তারা যান। কেউ যায় টাকা গচ্ছিত রাখতে৷ কেউ প্রচুর সম্পত্তি করেছে, সেগুলো বাঁচাতে যাচ্ছে৷ বিজেপি হল কালো টাকা সাদা করার ওয়াশিং মেশিন৷ বিজেপিকে ভালবেসে কেউ যায় না৷’

আরও পড়ুন : বিধানসভা ভোটের আগে নয়া চমক! প্রথমবার রাজ্য বাজেট পেশ করবেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি

তফশিলি জাতি ও উপজাতিদের সম্মেলন থেকে মুখ্যমন্ত্রী ধৈর্য ধরার বার্তা দেন। সোনার ডিম পাড়া হাঁসের প্রসঙ্গ উঠে আসে তাঁর কথায়। এদিন গীতাঞ্জলি স্টেডিয়ামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভায় সাময়িক বিশৃঙ্খলা হয়। সেই সভায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভাষণ শুরু করতেই কেউ কেউ উঠে দাঁড়ান। দু’‌জন কথা বলতে এগিয়ে যান। ব্যারিকেড পেরিয়ে এগিয়ে আসার চেষ্টা করেন। তখনই ক্ষেপে যান মুখ্যমন্ত্রী। এর জেরে সাময়িক বন্ধ হয়ে যায় সভা। বক্তব্য থামিয়ে দেন ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী। সবাইকে শান্ত হওয়ার আর্জি জানান অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বেশ কিছুক্ষণ পর বক্তব্য শুরু করেন মমতা৷

এরপর তিনি বলেন, আমাকে কেউ ভালবেসে কেউ যদি বলে, থালাবাসন ধুয়ে দাও, আমি করে দেব। কিন্তু আমাকে চমকে-ধমকে কিছু করা যাবে না। নির্বাচনের আগে এসে কেউ কেউ বলছেন, এটা করে দিতে হবে, ওটা করে দিতে হবে। সেটা আমি পারব না। তাতে আমাকে ভোট না দিলে দেবেন না। আমার কিছু আসে যায় না। যাঁরা আমার সঙ্গে থাকবেন, তাঁদের ভোটেই আমার সরকার হয়ে যাবে।

সূত্র : কলকাতা২৪x৭
এন এ/ ০৪ ফেব্রুয়ারি

Back to top button