ইউরোপ

লেবার পার্টি ছেড়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রথম হিজাবি মেয়র

লন্ডন, ১৩ অক্টোবর- বর্ণবাদ ও বৈষম্যমূলক আচরণের অভিযোগে লেবার পার্টি ছেড়েছেন যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রথম হিজাবি মেয়র রাকিয়া ইসমাইল।

গত মাসের শেষ দিকে কাউন্সিলের এক বৈঠকে আবেগঘন বক্তব্য দিয়ে নিজের পদত্যাগের ঘোষণা দেন দক্ষিণ লন্ডনের ইসলিংটন উপশহরের সাবেক মেয়র রাকিয়া।

বক্তব্যে সোমালিয়া বংশোদ্ভূত রাকিয়া বলেন, ‘গত ছয় বছর যাবত দায়িত্ব পালনকালে আমি উপলব্ধি করি, আমার মূল্যবোধের প্রতি নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ ও অন্য সদস্যরা শ্রদ্ধাশীল নন। তাই এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণে বাধ্য হওয়ায় আমি অত্যন্ত দুঃখিত।’

এমনকি নিজ দলের অভিযোগ করে রাকিয়া বলেন, ‘দলটি শ্বেতাঙ্গদের যা ইচ্ছা এবং যখন ইচ্ছা সবকিছু করার অনুমোদন দেয়।’

রাকিয়ার পদত্যাগের পর মেয়র পদের দায়িত্ব কাউন্সিলর জেনেট বারগেসের ওপর অর্পন করা হয়।

যুক্তরাজ্যের প্রথম হিজাবি মেয়র ও রাজনীতিবিদ রাকিয়া আরো জনান, ‘আমি অত্যন্ত দুঃখ পাই, কারণ আমার মনে হত দলটি ন্যায় ও সুবিচারের পক্ষে কাজ করে। কিন্তু ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা হলো, অনেকের সঙ্গে তারা তা বজায় রাখে না।’

তিনি আরো বলেন, লেবার পার্টির কাউন্সিলর হিসেবে হোলোওয়ে ওয়ার্ডের প্রতিনিধিত্ব করা আমার জন্য কষ্টকর । কারণ দলের নিয়ম-নীতিতে আমি অনেক আঘাত পেয়েছি। দলটি শ্বেতাঙ্গদের যখন যা ইচ্ছা তা করার সুযোগ দেয়।’

আরও পড়ুন:  করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: ইংল্যান্ডে তিন স্তরের কঠোর বিধিনিষেধ

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে রাকিয়াকে লেবার পার্টির প্রথম জাতীয় নারী সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়। আমন্ত্রণ পত্রে তাঁর ঠিকানা হিসেবে ‘সোমালিয় ‘ শব্দ লেখা থাকে।

রাকিয়া জানান, ‘এই আমন্ত্রণ পত্রের সঙ্গে আমার জম্মস্থান যোগসূত্র কী? তা দেখে আমি হতবাক হয়ে পড়ি।’

এছাড়া মেয়রের অফিসিয়াল টুইটার একাউন্ট থেকেও তাঁকে ব্লক দেওয়া হয়। ইসলামফোবিয়া মনোভাব থেকে তাঁর অনেক সহকর্মী ২০০১৯ সালে মুসলিমদের ঈদ উপলক্ষে বিশেষ আয়োজন করতে বাধা দেওয়া হয়।

সূত্র : দি গার্ডিয়ান ও টিআরটি

আর/০৮:১৪/১৩ অক্টোবর

Back to top button