সিলেট

ঢাকা-সিলেট রেলপথ ডাবল লাইন করা নিয়ে যা বললেন পরিকল্পনামন্ত্রী

সিলেট, ৩১ জানুয়ারি – সিলেট-ঢাকা রেলপথটি ডুয়েলগেজের পাশাপাশি ডাবল লাইনে উন্নীতকরণ প্রকল্প ২০১৯ সালে সরকার অনুমোদন দিলেও আজ পর্যন্ত আলোর মুখ দেখেনি সেটি। তবে সর্বশেষ পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সিলেটে এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, সিলেট-ঢাকা রেললাইন দুই লাইনে উন্নীত করার কাজ অনেকদূর এগিয়ে গেছে।

গত ২৯ জানুয়ারি (শুক্রবার) সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোল্লারগাঁও ইউনিয়নের তেলিরাই গ্রাম সংলগ্ন সুরমা নদীর পাড়স্থ ‘স্পোর্টস গার্ডেন’ নামক ইনডোর স্টেডিয়ামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সিলেট-ঢাকা রেললাইন দুই লাইনে উন্নীত করার প্রকল্প দ্রুত সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে আলোর মুখ দেখবে।

তিনি বলেন- শুধু তাই নয়, সিলেট-ছাতক-সুনামগঞ্জ পর্যন্ত রেললাইনকে বর্ধিত করার কাজ অনেকটা এগিয়ে গেছে। একই সাথে সিলেট-সুনামগঞ্জ হয়ে নেত্রকোনা-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ পর্যন্ত রেলপথ সম্প্রসারণ করা হবে।

এর আগে ২০১৯ সালের আগস্টে সিলেট-আখাউড়া রেলপথটি ডুয়েলগেজের পাশাপাশি ডাবল লাইনে উন্নীত করার জন্য রেলপথমন্ত্রী বরাবর আধা-সরকারি পত্র (ডিও লেটার) চেন সিলেট বিভাগের চারজন মন্ত্রী। অপরদিকে, ওই বছরের একই মাসে এ বিষয়ক একটি প্রকল্প অনুমোদন করে সরকার।

আরও পড়ুন : সিলেটে পৌঁছাল ২ লাখ ২৮ হাজার করোনার টিকা

রেলওয়ে সূত্র জানায়, সিলেট-আখাউড়া রেলপথটি ডাবল লাইন উন্নীত করতে ২০১৯ সালের আগস্টে ডিও দেন তিন মন্ত্রী। তারা হলেন-সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন, মৌলভীবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য ও পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়কমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন এবং সিলেট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়কমন্ত্রী ইমরান আহমদ। একই মাসে একই অনুরোধ জানিয়ে ডিও দেন সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঢাকা থেকে আখাউড়া পর্যন্ত রেলপথ ডাবল লাইন রয়েছে। তবে আখাউড়া থেকে সিলেট অংশটি সিঙ্গেল লাইন রেলপথ। এতে ঢাকা বা চট্টগ্রাম থেকে সিলেট রুটে ট্রেন চলাচল বৃদ্ধিতে এ অংশটি বড় প্রতিবন্ধক। এ রেলপথে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে সিঙ্গেল লাইনের কারণে এ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী দেশের সব রেলপথকে ডুয়েলগেজ ও ডাবল লাইনে উন্নীত করার বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন। তাই আখাউড়া-সিলেট রেলপথ ডুয়েলগেজের পাশাপাশি ডাবল লাইন নির্মাণ জরুরি।

জানা গেছে, সিলেট-আখাউড়া রেলপথ ডুয়েলগেজ রূপান্তর প্রকল্পের আওতায় ২৩৯ দশমিক ১৪ কিলোমিটার মিটারগেজ রেলপথকে ডুয়েলগেজে রূপান্তর করা হবে। এর মধ্যে ১৭৬ দশমিক ২৪ কিলোমিটার মূল রেলপথ ও ৬২ দশমিক ৯০ কিলোমিটার লুপ লাইন রয়েছে। জিটুজি ভিত্তিতে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে চায়না রেলওয়ে কনস্ট্রাকশন কোম্পানি। দরপত্র ছাড়াই দরকষাকষির মাধ্যমে এ ঠিকাদার চূড়ান্ত করা হয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬ হাজার ১০৪ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। এতে কিলোমিটারপ্রতি যে ব্যয় পড়ছে, তা অন্যান্য প্রকল্পের কয়েকগুণ বেশি।

এদিকে আখাউড়া-সিলেট মিটারগেজ রেলপথটি ডুয়েলগেজে রূপান্তরের চুক্তি মূল্য ধরা হয়েছে ১৪৯ কোটি ৭৬ লাখ ডলার। এর মধ্যে ৮৫ শতাংশ তথা ১২৭ কোটি ২৯ লাখ ডলার বা প্রায় ১০ হাজার ৬৫৪ কোটি ৩৬ লাখ টাকা ঋণ দেবে চীন। চুক্তি মূল্যের বাকি অর্থ ও অন্যান্য ব্যয় বাবদ পাঁচ হাজার ৪৫০ কোটি আট লাখ বাংলাদেশ সরকার সরবরাহ করবে।

প্রকল্পটির ব্যয় বিশ্লেষণে দেখা যায়, রেলপথ নির্মাণে মূল ব্যয় ধরা হয়েছে ৯ হাজার ২৮৯ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। এর সঙ্গে দর সমন্বয় যুক্ত হবে ২৭ শতাংশ। আর অনিশ্চিত ব্যয় রয়েছে আরও দুই শতাংশ। রয়েছে অন্যান্য খাতের ব্যয়ও। সব মিলিয়ে নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩ হাজার ৯৬৪ কোটি ৩৮ লাখ টাকা। অর্থাৎ- কিলোমিটারপ্রতি ব্যয় পড়বে ৫৮ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

সূত্র : সিলেটভিউ২৪ডটকম
এন এইচ, ৩১ জানুয়ারি

Back to top button