দক্ষিণ এশিয়া

জুন নাগাদ ভারতে নোভাভ্যাক্সের টিকা আনতে চায় সেরাম ইন্সটিটিউট

নয়াদিল্লী, ৩১ জানুয়ারি – মার্কিন কোম্পানি নোভাভ্যাক্সের সঙ্গে যৌথভাবে তৈরি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনটি আগামী জুন মাস নাগাদ ভারতের বাজারে নিয়ে আসা যাবে বলে আশা করছে পুনেভিত্তিক সেরাম ইন্সটিটিউট। স্থানীয় পর্যায়ে কোভোভ্যাক্স নামের ওই ভ্যাকসিনটির ট্রায়াল চালাতে ভারত সরকারের অনুমোদনের জন্য আবেদনও করা হয়েছে। শনিবার (৩০ জানুয়ারি) টুইটার পোস্টে সেরাম ইন্সটিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদর পুনেওয়ালা এসব তথ্য জানিয়েছেন।

বর্তমানে ভারতে কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিন দু’টি কোভিড ভ্যাকসিন প্রয়োগের অনুমোদন রয়েছে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে যুক্ত হয়ে ভারতের সিরাম ইনস্টিটিউট কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন তৈরি করেছে। অন্যদিকে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর) এবং ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজির সহযোগিতায় হায়দারাবাদ ভিত্তিক ভারত বায়োটেক তৈরি করেছে কোভ্যাক্সিন। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছিলেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যে তার দেশে আরও কয়েকটি টিকা ছাড়পত্র পাবে। এরই মাঝে জুন মাসের মধ্যে আরও এক টিকা নিয়ে আসার কথা জানালেন সেরাম ইন্সটিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আদর পুনেওয়ালা।

আরও পড়ুন : আফগানিস্তানে বোমা হামলায় ৮ নিরাপত্তারক্ষী নিহত

শনিবার (৩০ জানুয়ারি) বিকালে এক টুইটার পোস্টে সেরাম কর্ণধার লিখেছেন, ‘নোভাভ্যাক্সের সঙ্গে অংশীদারত্বের ভিত্তিতে আমরা যে ভ্যাকসিন তৈরি করেছি তা অসাধারণ কার্যকারিতা দেখিয়েছে। ভারতে পরীক্ষা শুরু করার জন্য আবেদন করেছি আমরা। আশা করছি ২০২১ সালের জুন নাগাদ কোভোভ্যাক্স বাজারে নিয়ে আসতে পারব।’

আমেরিকান ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী কোম্পানি নোভাভ্যাক্সের টিকা নিয়ে চালানো ট্রায়ালে দেখা গেছে এটি মূল করোনাভাইরাস স্ট্রেইনের বিরুদ্ধে ৯৫.৬ শতাংশ কার্যকর। যুক্তরাজ্যে পাওয়া যাওয়া নতুন বৈশিষ্ট্যের করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধেও এর কার্যকারিতা ৮৫.৬ শতাংশ। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন বৈশিষ্ট্যের বিরুদ্ধে চালানো মাঝ পর্যায়ের ট্রায়ালে এর সুরক্ষার মাত্রা তুলনামূলকভাবে কম বলে দেখা গেছে।

সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন
এন এইচ, ৩১ জানুয়ারি

Back to top button