রাজশাহী

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

রাজশাহীর, ২৯ জানুয়ারি – রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার দ্বীপপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোখলেসুর রহমান দুলালের বিরুদ্ধে জাল কাগজে সরকারি বরাদ্দ আত্মসাৎ, ইউনিয়নের নারী সদস্যদের শ্লীলতাহানি, অবৈভধভাবে দীঘি খনন এবং ইটভাটা নির্মাণ ও গবাদিপশুর খামার করে পরিবেশ বিনষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেছেন ওই ইউনিয়নের দুজন নারী সদস্য। অভিযোগকারীরা হলেন- দ্বীপপুর ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মোছা. হাসিনা বানু এবং ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মোছা. ফাতেমা খাতুন।

লিখিত অভিযোগে তারা জানান, মোখলেসুর রহমান দুলাল চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে নানা অনিয়ম-দুর্নীতি করে আসছেন। প্যানেল নির্বাচিত না করে একক সিদ্ধান্তে ভুয়া প্যানেল চেয়ারম্যান দিয়ে কাজ করছেন। উন্নয়নমূলক কোনো কাজে ইউপি সদস্যদের ডাকেন না, কোনো নোটিশ করেন না। একক সিদ্ধান্তে রেজুলেশন ছাড়াই ভুয়া কাগজে স্বাক্ষর দিয়ে চেয়ারম্যান স্বাক্ষরিত নোট দেখিয়ে যাবতীয় কাজ করেন। গত চার বছর চার মাসে স্থানীয় সরকারের বরাদ্দ এডিপি, কাবিখা, এলজিএসপি, কাবিটা, টিআর, রাজস্ব, গৃহট্যাক্সসহ যাবতীয় সরকারি অর্থ কাজ না করিয়ে আত্মসাৎ করেছেন চেয়ারম্যান।

আরও পড়ুন : পাবনা পৌর নির্বাচনের প্রচারণায় সংঘর্ষ, আহত ১০

নারী ইউপি সদস্যদেও আরও অভিযোগ, এসব অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় তাদের সাথে দুর্ব্যবহার ও শ্লীলতাহানি করেছেন চেয়ারম্যান। ভুয়া কাগজ তৈরি করে বারবার অর্থ আত্মসাৎ করে বিলসুতী বিলে ৫০-৬০ বিঘা দীঘি খনন করেছেন এবং বিলের চরে বিশাল গরু-ছাগল, ভেড়া, হাঁস-মুরগি ও মহিষের খামার গড়ে তুলেছেন। তিনি মীরপুরে অংশীদার হয়ে অবৈধভাবে ইটভাটা নির্মাণ ও প্রায় ৫টি পুকুর খনন করে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন।

এসব বিষয়ে রাজশাহী জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সরকারের উপসচিব বরাবর লিখিত অভিযোগও দেয়া হয়েছে। ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন নারী সদস্যরা। এ বিষয়ে দ্বীপপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোখলেসুর রহমান দুলালের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি তার বিরুদ্ধে করা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

সূত্র : যুগান্তর
এন এইচ, ২৯ জানুয়ারি

Back to top button