ক্রিকেট

ম্যাচসেরা হয়েও সমালোচনার মুখে ইমাম

ইসলামাবাদ, ১২ অক্টোবর- দলীয় ১৭৩ রানের মধ্যে ইমাম উল হক একাই করলেন অপরাজিত ৯২ রান। পাকিস্তানের ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপে তার দল বেলোচিস্তান ম্যাচ হারলেও ম্যাচসেরার পুরস্কারও হাতে উঠেছে এই বাঁহাতি ওপেনারের হাতে। তবুও ম্যাচশেষে কঠিন সমালোচনার মুখে এই পাকিস্তানি ওপেনার।

পাকিস্তানের ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপের ম্যাচে বেলোচিস্তান এবং সিন্ধের মধ্যকার ম্যাচে ইমাম উল হকের সিঙ্গেল নিতে না চাওয়ার ঘটনায় সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে এই ব্যাটসম্যানকে। রাওয়ালপিন্ডিতে বেলোচিস্তানের হয়ে মাঠে নেমে ওপেনিংয়ে নেমে পুরো ২০ ওভার ব্যাটিং করেছেন ইমাম। ম্যাচের শেষ ওভারে এই বাঁহাতি ওপেনারের সামনে সেঞ্চুরির সুযোগ আসে। ৬ বল থেকে ১৭ রান করতে পারলে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে প্রথম শতকের দেখা পেতো ইমাম।

আরও পড়ুন: বিরাট নয় রশিদ খানের স্ত্রী আনুশকা বলছে গুগল, কিন্তু কেন?

সে লক্ষ্যে হাসনাইনের করা প্রথম বল থেকে চারও হাঁকিয়েছিলেন। তবে পরের বলে নিশ্চিত সিঙ্গেল নেওয়ার সুযোগ থাকলেও নেননি। অথচ অপর প্রান্তে ছিলেন আরেক ব্যাটসম্যান বিসমিল্লাহ খান। যিনি কিনা ৫ বলে ঝড়ো ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। আর ওই বলে সিঙ্গেল না নেওয়াতে, ইমামকে ঘিরে সমালোচনা ওঠে। ভক্ত-সমর্থকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলতে থাকে, সেঞ্চুরির আশায় স্বার্থপরের মতো খেলেন ইমাম উল হক।

শেষ পর্যন্ত ইমাম ৯২ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়ে। বেলোচিস্তান অবশ্য ম্যাচটি জিততে ব্যর্থ হয়। পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের ২৮ বলে ঝড়ো ৪৪ রানের বদৌলতে সিন্ধ ম্যাচটি জিতে নেয় ৪ উইকেটে। বেলোচিস্তানের ম্যাচটি হেরে যাওয়ার জন্যও ইমামকে দোষারোপ করতে থাকেন অনেকে। এমনকি ইমামকে ম্যাচসেরার পুরস্কার দেওয়াও মেনে নিতে পারেননি অনেকে।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ১২ অক্টোবর

Back to top button