ঢালিউড

জনপ্রিয় তারকাদের সন্তানরা শোবিজে নয় বরং অন্য পথে

মেহেরুবা শহীদ

শোবিজ অঙ্গনকে ঘিরে বাংলাদেশের তারকা সন্তানদের অনীহা। তারকাদের ছেলে-মেয়েরা রুপালি পর্দায় নিজেদের নিজের ক্যারিয়ার না গড়ে তারা হাঁটছেন অন্য পথে। তথা কথিত দুই-একজন শোবিজে পদার্পন করলেও অনেকের সন্তানই শোবিজের পথ মাড়াননি। ইন্ডাস্ট্রির হাল ধরার জন্য দরকার প্রজন্ম থেকে প্রজন্ম।

বাংলাদেশের বড়পর্দার সঙ্গে যদি ভারতের বিনোদন চলচ্চিত্র অঙ্গনের তুলনা করি তাহলে তার দৃশ্যটা দাঁড়ায় একেবারেই উল্টো।

বলিউডে প্রজন্মের পর প্রজন্ম একই মাধ্যমে। বংশপরম্পরায় একচেটিয়া রাজত্ব করছে কাপুর পরিবার- এ নিয়ে আছে নানা লড়াইও। দাদা, বাবা, ভাই ও বোনের পথ ধরে নতুন প্রজন্মের তারকা হিসেবে কাপুর বাড়ি থেকে নাম করেছেন রণধীর কাপুরের মেয়ে কারিনা কাপুর এবং ঋষি কাপুরের ছেলে রণবীর কাপুর। প্রায় নয় দশক ধরে এই পরিবার বলিউড শাসন করে চলেছে।

এদিকে নবাববাড়ির বউ শর্মিলা ঠাকুরের পুত্র সাঈফ সাইফ আলি খানও তারকাখ্যাতি পেয়েছেন। নবাব পরিবারের তৃতীয় প্রজন্ম হিসেবে সাইফের বড় মেয়ে সারা আলি খান সিনেমায় নাম লিখিয়েছেন। অন্যদিকে মহেশের পরের প্রজন্মের মধ্যে তারকাখ্যাতি পেয়েছেন মহেশ ভাটের মেয়ে আলিয়া ভাট ও ভাগ্নে ইমরান হাশমি। এরকম আরও অসংখ্য উদাহরণ আছে বলিউডে।

কিন্তু যদি আমাদের দেশের রূপালি জগতের দিকে তাকাই তাহলে দেখবো বিনোদন অঙ্গনে তারকা সন্তানদের অংশগ্রহণ প্রায় শূন্যের কোঠায়। তবে কি এই ইন্ডাস্ট্রিকে কেউ আপন মনে করে না? আজ দেখে নেওয়া যাক রূপালি পর্দায় দাপিয়ে বেড়ানো তারকারদের সন্তানেরা ক্যারিয়ার গড়ছেন কোথায়?

হুমায়ূন ফরিদীর মেয়ে
প্রয়াত অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদির একমাত্র মেয়ে শারারাত ইসলাম। সবাই তাকে দেবযানী নামেই চেনে । বাবা সম্পর্কে কখনো তেমন কিছু বলেন না তিনি। একটি প্রাইভেট ব্যাংকে কর্মরত আছেন দেবযানী। তার স্বামী কাজী সাবির একজন সিনিয়র নিউজ প্রেজেন্টার। এছাড়াও কাজী সাবির একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানেও কর্মরত আছেন।

ববিতার ছেলে
ববিতার একমাত্র ছেলে অনিক কানাডায় পড়াশুনা করেছেন। কানাডার ওয়াটার লু ইউনিভার্সিটিতে ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে পাশ করে সেখানেই কর্মরত আছেন।

শাবানার মেয়ে ও ছেলে
শোবিজের পথ মাড়ায়নি শাবানার উত্তরাধিকারের কেউই । বড় মেয়ে সুমী ইকবাল এমবিএ ও সিপিএ করেছেন। মেয়ে সুমী এখন পুরোদস্তুর গৃহিণী। ছোট মেয়ে উর্মি সাদিক হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করেছেন। আর তার ছেলে নাহিন সাদিক রটগার্স বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স করে এখন ব্লুমবার্গে চাকরি করছেন।

রোজি সিদ্দীকি ও শহীদুজ্জামান সেলিমের দুই মেয়ে
এ তারকা দম্পতির দুই মেয়ে। বড় মেয়ে সেঁজুতি খান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে এখন তিনি ব্যাংক কর্মকর্তা। ছোটমেয়ে সানজানা খান শ্রীমা অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডে গ্রিফিথ বিশ্ববিদ্যালয়ে হিসাববিজ্ঞানে স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। এখন তাঁর মন ছুটেছে গানের দিকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ছুটির ফাঁকে এবার দেশে এসে গানে কণ্ঠ দিছেন। কিছুদিন আগে ‘আমার গল্প শুনাইস’ শিরোনামের একটি গান প্রকাশ করেছেন। মেয়েদের নিয়ে সেলিম বলেন,‘ ওরা শোবিজে নিয়মিত থাকবে কিনা বলতে পারছি না। এখানে আসলে ওদের চাওয়াটারই প্রাধান্য ছিল।

আকবর হোসেন পাঠান ফারুক
ফারুকের মেয়ে ফারিহা তাবাসসুম তুলসি ও ছেলে রওশন হোসেন পাঠান শরৎ ইংলিশ মিডিয়ামে পড়াশুনা করছেন। ফারুক জানান, সন্তানরা শোবিজে আসবে না বলা চলে।

শাকিব-অপুর ছেলে
এ প্রজন্মের শাকিব খান তার ছেলেকে নিয়ে বলেছেন, ও কখনো শোবিজে আসবে না।

অপূর্বর ছেলে
আমার ইচ্ছে নেই। অপূর্বর ছেলে আয়াশ অভিনয় করেছে। তবে এ মাধ্যমে নিয়মিত হবে না বলেই জানান। ছেলেকে নিয়ে নিশোরও ভাবনা এমন।

মিশা সওদাগর
খলনায়ক মিশা সওদাগরের বড় ছেলে হাসান মোহাম্মদ ওয়ালিদও যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনা করছেন। মিশা চায় ছেলে যেন উচ্চশিক্ষিত হয়ে অন্যকোন পেশায় ক্যারিয়ার গড়ে।

জসিমের সন্তান
প্রয়াত অ্যাকশান অভিনেতা জসিমের তিন ছেলে সামী, রাতুল ও রাহুল। চলচ্চিত্রে নয় বরং তারা গান নিয়ে মেতে আছেন।জসিমের বড় ছেলে জানান, দুই ভাই ও আরো দুই বন্ধু মিলে গড়েছেন একটি আন্ডারগ্রাউন্ড ব্যান্ড দল। তাদের রক মেটাল ব্যান্ডদলের নাম ‘ওন্ড’ (Owned)। জসিমের বড় সামী (ড্রামার) আর মেঝছেলে রাতুল (ভোকালিস্ট ও বেজ)। ‘ওন্ড’ ব্যান্ডের প্রথম অ্যালবাম ‘ওয়ান’ প্রকাশ হয়েছিল ২০১৪ সালে। দ্বিতীয় অ্যালবাম ‘টু’ প্রকাশ হয়েছিল ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে।

দিতি-সোহেল চৌধুরির সন্তান
প্রয়াত অভিনেত্রী দিতির এক মেয়ে ও এক ছেলে। অভিনয়ে নেই তাদের দুই সন্তানই। মেয়ে কানাডা থেকে ফিল্ম মেকিং নিয়ে পড়াশোনার পাঠ চুকিয়ে ফিরেছেন দেশে। নায়িকা দিতির মেয়ে লামিয়াকে পরিচালনায় দেখা গেলেন সেটা নিয়মিত নয়। ছেলে দীপ্ত নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ বিষয়ে পড়াশোনা করেছেন। ছেলে দীপ্ত শোবিজের বাইরে আছেন।

মান্নার ছেলে
প্রয়াত চিত্রনায়ক মান্নার একমাত্র ছেলে সিয়াম ইলতিমাস। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটিতে ফিল্ম প্রোডাকশন অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্র তার ছেলে। পড়াশোনার জন্য চার বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে থাকছেন এই ছুটিতে মাঝে মধ্যে দেশে আসেন। তবে অভিনয় নিয়ে তার কোনো পরিকল্পনা নেই। অভিনয় নিয়ে সিয়ামকে একবার বলা হয়েছিল যে, অনেকেই বলছেন অভিনয় করলে আপনি হয়তো মান্নার জায়গাটা নিতে পারবেন। উত্তরে এ বিষয়টি সিয়াম বলেছিল, আমার মনে হয় না আমি আমার বাবার জায়গাটি নিতে পারবো। তার মতো এতো ভালো অভিনয় আমাকে দিয়ে সম্ভব নয়।

দিলদারের দুই মেয়ে
প্রয়াত কমেডি অভিনেতা বড় মেয়ে নাম মাসুমা আক্তার পেশায় তিনি দাঁতের ডাক্তার। বিয়ে করেছেন অনেক আগেই। তার ছেলে নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়য়ে পড়ছে আর মেয়ে পড়ছে ক্লাস সেভেনে। দিলদারের ছোট মেয়ে জিনিয়া আফরোজ আগে টেলিকমিনিকেশনে চাকরি করতেন। সেখানে থেকে চলে আসেন ব্রাক ব্যাংকে। শারীরিক অসুস্থতা ও অতিরিক্ত কাজের প্রেসারে পাঁচবছর চাকরির পর সেটিও ছেড়ে দেন তিনি। বর্তমানে চাকরির চেষ্টা করছেন তিনি।

আরও পড়ুন :  মৃত্যুর আগে দুই ঘণ্টা কোথায় ছিলেন আশা?

আলমগীরের মেয়ে
আলমগীরের মেয়ে আঁখী পড়াশুনা করেছেন আইনবিদ্যায়। সুন্দরী হিসেবে খ্যাতি থাকলেও অভিনয়ে না এসে তিনি মন দিয়েছেন গানে। এটাই তার পেশা।

ডা. এজাজ
অভিনেতা ডা. এজাজের বড় মেয়ে তাসফিয়া ডাক্তারি পাশ করেছেন। ছোটমেয়ে তাসনুভাও ডাক্তারি পড়াশুনা করছেন। দুই ছেলের মধ্যে বড় ছেলে আবু রাশেদও ডাক্তারি পড়ছেন। আর ছোট ছেলে আবু বাকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে হেলথ ইকোনমিক্সে পড়ছেন। এই অভিনেতার সন্তানদের মধ্যে কেওই শোবিজে নেই। ড. এজাজ জানান, তার সন্তানেরা কখনো কাজ করবেন বলেও বলা যায় না।

রাজ রাজ্জাক
বাপ্পা রাজ ও সম্রাট বাবার মতোই নায়ক হয়েছেন ঠিকই। কিন্তু বাবার মতো কিংবদন্তি হওয়ার সম্ভাবনা নেই তাদের। ছেলেদের নিয়ে প্রয়াত অভিনেতা নায়ক রাজ বলেছিলেন,‘বাংলা চলচ্চিত্রে আমার দুটি ছেলেকেই তো দিয়ে দিলাম। অন্য ছেলেটার যোগ্যতা ছিল না বলে আসতে পারেনি। আমি ওদের ডাক্তার কিংবা ইঞ্জিনিয়ার নয়, বরং ভালো অভিনেতা বানাতে চেয়েছি।‘

সুব্রত-দোয়েলের মেয়ে
অভিনেতা সুব্রত ও প্রায়ত চিত্রনায়িকা দোয়েলের মেয়ে দীঘি। এই তারকা কন্যা শিশুশিল্পী হয়ে ‘বাবা জানো, আমাদের একটা ময়না পাখি আছে না…’ সংলাপ বলে একটি বিজ্ঞপন করেই বাজিমাত করেছিলেন আগেই। ইতোমধ্যে বড় পর্দায় নাম লিখিয়েছেন দীঘি। এখন দেখার পালা যে, চলচ্চিত্রে তিনি কতটা সাড়া জাগাবেন।

মৌসুমী- ওমর সানী ছেলে-মেয়ে
মৌসুমী- ওমর সানী দম্পত্তির ছেলে ফারদিন যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনা করছেন। পরিচালনার খাতায় নাম লিখিয়েছেন। বাবা-মাও যথেষ্ট সহযোগী তার শোবিজের পথচলায়। মেয়ে ফাইজা এখনো পড়াশুনার গন্ডি পেরোয়নি।

অমিত হাসান
অমিত হাসানের দুই মেয়ে লামিসা ও সামান্থা। বড় মেয়ের বয়স ও যোগ্যতা হয়েছে নায়িকা হওয়ার। তিনি বলেন,‘ আমার মেয়ে অভিনয় করতে পারেন বলে আমার মনে হয়। কিন্তু কোন পরিচালক যদি তাকে খুঁজে বের না করে। আমিতো তাকে কল দিয়ে বলতে পারি না। আর আমার মেয়েও পরিচালককে কল দিয়ে বলতে পারেন না। যা অন্য মেয়েরা হয়তো পারে। আমার মেয়ে পারে না কারণ, তাতে হয়তো তার বাবার অসম্মান হবে। এটা আসলে পরের প্রজন্ম আসতে চায় না ব্যাপারটি তা নয়। তাকে কে আনবে সেটাও ব্যাপার। ‘

সূত্র: বাংলা ইনসাইডার

আর/০৮:১৪/৯ জানুয়ারি

Back to top button