সিলেট

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিনের মৃত্যু নিয়ে রহস্য, কৌতুহলী এলাকাবাসী

ফরিদ উদ্দীন

সিলেট, ৫ জানুয়ারি- সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা ইয়াসমিন। ফেঞ্চুগঞ্জ ঘিলাছড়ার বাসিন্দা সেলিনা ইয়াসমিন গত ২৫শে ডিসেম্বর ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরন করেন। তার মৃত্যুর পর আলোচনায় চলে আসে সেলিনা ইয়াসমিমের একটি রহস্যময় ফেইসবুক পোস্ট।

গত ৫ই ডিসেম্বর তিনি তার ফেইসবুক একাউন্টে নিজের ক্ষতির আশংকা করে একটি পোস্ট শেয়ার করেন, তাতে তিনি উল্লেখ করেন তার পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। তার কোন শারীরিক, মানসিক ও অর্থনৈতিক ক্ষতি হলে তার জন্য ৩জন মানুষ দায়ি থাকবেন। এ ব্যাপারে সবকিছু তার মেয়ের কাছে আছে। উপযুক্ত সময়ে মেয়ে তা প্রকাশ করবে।

এই স্ট্যাটাসের পরে সেলিনা ইয়াসমিন অসুস্থ হয়ে পড়েন,তাকে সিলেট মাউন্ড এডোরা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সেলিনা ইয়াসমিন মানসিক চাপে স্ট্রোক করে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় নেওয়া হলে সেখানেই চিকিৎসাধিন অবস্থায় তিনি মারা যান। অন্য দিকে তার পোস্টকৃত সেই রহস্যজনক স্ট্যাটাস তোলপাড় শুরু করে জেলা জুড়ে। বিভিন্ন গনমাধ্যমে খবর প্রকাশ হতে থাকে। কিন্তু কারা ঔ ৩জন? আর কি নির্যাতন? কেন নির্যাতন এসব প্রশ্নের কুল কিনারা হয় নি। পুলিশি তদন্ত চললেও তার অগ্রগতি সম্পর্কে জানা যায় নি। অন্য দিকে রহস্যের একমাত্র সাক্ষি সেলিনা ইয়াসমিনের মেয়ে সেজুতি এ ব্যাপারে মুখ না খোলায় পুরো বিষয়টি ঘোলাটে রয়ে যায়। সেজুতি নিরবেই ঢাকায় ফিরে যান। অন্যদিকে ঘিলাছড়ায় সেলিনা ইয়াসমিনের নিকট স্বজন, পারিবারিক লোকদের নিরবতা নানান প্রশ্নের জন্ম দিয়ে যাচ্ছে।

সেই সুযোগে সন্দেহভিত্তিক অভিযোগের তীর ছুটে স্থানীয় একজন আওয়ামিলীগ নেতা একজন উপ প্রকৌশলী সহ ৩জনের দিকে। উপযুক্ত প্রমান না থাকলেও উপজেলা জুড়ে আলোচনার কেন্দ্রতে ঐ ৩জন। চলছে নানা গুঞ্জন। ইতিমধ্যে মূলধারার একটি পত্রিকায় উপজেলা উপ প্রকৌশলী ওয়াজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ করে ফেসে যাচ্ছেন বলে সংবাদ প্রকাশ করলে ঘটনার মোড় পালটে যায়। ঐ সংবাদ প্রচারের পরেই উপ-প্রকৌশলী ওয়াজিবুর রহমানও আরেক রহস্যজনক স্ট্যাটাস দেন তার নিজস্ব ফেইসবুক একাউন্টে। রোববার মধ্যরাতে তার স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, তাকে জড়িয়ে একটি কুচক্রী মহল স্বার্থ হাসিলের জন্য বিভিন্ন নিউজ করাচ্ছেন। যা মিথ্যা বানোয়াট। তার কোন ক্ষতি হলে শত্রুদের নাম তার কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনের কাছে থাকবে এবং তার মৃত্যু হলে তা প্রকাশ হবে।

আরও পড়ুন :  কিশোরী আতিকা এখন কিশোর আতিকুল!

অন্য দিকে প্রয়াত সেলিনা ইয়াসমিনের ক্ষতির আশংকা করে স্ট্যাটাস,তার মৃত্যুর পর উপ প্রকৌশলী ওয়াজিবুর রহমানের ক্ষতি ও মৃত্যুর আশংকার স্ট্যাটাস! দুইটা মিলিয়ে ঘোর রহস্যের জালে বিভ্রান্ত উপজেলার মানুষ। নিজের ক্ষতির আশংকার ব্যাপারে উপ-প্রকোশলী ওয়াজিবুর রহমানের সাথে আলাপ করলে তিনি বলেন, আমার পরিবার ও দপ্তরের সাথে আলাপ করে বিস্তারিত জানাবো।

সূত্র: সিলেটভিউ২৪

আর/০৮:১৪/৫ জানুয়ারি

Back to top button