মিডিয়া

ডিসির করা মামলায় সাংবাদিক গ্রেপ্তার

কিশোরগঞ্জ, ৩০ ডিসেম্বর- কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় আকিব হৃদয় (২৬) নামে এক সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার রাত পৌনে ১২টার দিকে মামলাটি করেন মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী। পরে রাত তিনটার দিকে শহরের উকিলপাড়ার বাসা থেকে প্রতিদিনের সংবাদ ও আনন্দ টিভির জেলা প্রতিনিধি আকিব হৃদয়কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ওই মামলায় জেলা প্রশাসক, ভ্রাম্যমাণ আদালত ও পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে হুমকি ও বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলায় আকিব হৃদয় ছাড়াও মোস্তাফিজুর রহমান ও মনোয়ার হোসেনকেও আসামি করা হয়েছে। মামলার আসামিদের মধ্যে আকিব হৃদয় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক কমিটির উপ–আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক আর মোস্তাফিজুর রহমান সাবেক ধর্মবিষয়ক সম্পাদক।

কিশোরগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক বলেন, আকিব হৃদয়কে পুলিশ শহরের উকিলপাড়া এলাকার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে গতকাল আদালতে পাঠায়। আদালতে সোপর্দ করা হলে জ্যেষ্ঠ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শহীদুল ইসলাম তাঁকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

স্থানীয় সূত্রগুলো জানায়, জেলা প্রশাসনের ঘনিষ্ঠ হিসেবেই আকিবকে এখানকার সবাই চেনেন। বিভিন্ন সময় জেলা প্রশাসন আয়োজিত অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করতে দেখা যেত তাকে। সর্বশেষ পাঁচ দিন আগেও ডিসির বদলি উপলক্ষে তাকে ফুল দিয়ে বিদায় জানিয়ে আসেন আকিব।

মামলার এজহারে বলা হয়, সোমবার বিকেলের দিকে শহরের সার্কিট হাউজের সামনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছিলেন জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে কর্মরত কয়েকজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। এ সময় ড্রাইভিং লাইসেন্স ও হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেল চালানোর অপরাধে আকিব হৃদয়কে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জুলহাস হোসেন সৌরভ। জরিমানা করার পর আকিব হৃদয় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের গালিগালাজ ও দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। এ ঘটনার পর বিকেল পৌনে চারটার দিকে অভিযুক্ত তিনজন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ফেসবুক লাইভে এসে আজেবাজে মন্তব্যসহ জেলা প্রশাসকের বিষয়ে বাজে কথা ও মন্তব্য করেন। লাইভে আকিব হৃদয় দাবি করেন, মোবাইল কোর্ট পরিচালনার সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের ‘স্যার’ বলে সম্বোধন না করায় তাকে জরিমানা করা হয়।

সূত্র: আমাদের সময়
আডি/ ৩০ ডিসেম্বর

Back to top button