ইউরোপ

ইউক্রেন রাজি থাকলে যে কোনো সময় সংলাপে প্রস্তুত মস্কো

মস্কো, ০৬ ডিসেম্বর – কিয়েভের সঙ্গে যে কোনো সময় শান্তি সংলাপ শুরুর জন্য প্রস্তুত রয়েছে মস্কো। মঙ্গলবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মুখপাত্র ও প্রেস সেক্রেটারি দিমিত্রি পেসকভ এক সাক্ষাৎকারে এ তথ্য জানিয়েছেন।

রুশ সংবাদমাধ্যম আরটিভিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পেসকভ বলেন, ইউক্রেন যদি রাজি থাকে— সেক্ষেত্রে যে কোনো সময়েই শুরু হতে পারে সেই সংলাপ।

‘আমাদের প্রেসিডেন্ট আগেও কয়েক বার বলেছেন, (ইউক্রেনে) আমাদের লক্ষ্য অর্জনই মস্কোর কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আর যুদ্ধের মাধ্যমেই সেই লক্ষ্য অর্জন করতে— এমন কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক পন্থাতেও আমাদের দ্বিপাক্ষিক বিরোধগুলোর সমাধান হতে পারে।’

‘আমরা শান্তি সংলাপ শুরুর জন্য প্রস্তুত। আমাদের দুয়ার খোলা। কিয়েভ যদি রাজি থাকে, তাহলে যে কোনো সময় এই সংলাপ শুরু হতে পারে।’

২০১৫ সালে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরের পরও ক্রিমিয়া উপদ্বীপকে সাংবিধানিক ভাবে রুশ ভূখণ্ড হিসেবে স্বীকৃতি না দেওয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্যপদের জন্য তদবিরের অভিযোগে ইউক্রেনের সঙ্গে কয়েক বছর টানাপোড়েন চলার পর ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে অভিযান শুরু করে রুশ বাহিনী। প্রেসিডেন্ট পুতিন এই অভিযানের নির্দেশ দিয়েছিলেন।

এই যুদ্ধ শুরুর এক সপ্তাহ পর প্রথম যুদ্ধবিরতি ও শান্তি সংলাপের উদ্যোগ নিয়েছিল বেলারুশ। দুই দেশের সরকারি প্রতিনিধিরা তাতে অংশও ‍নিয়েছিলেন— কিন্তু কয়েকদিন পর সেটি ভেস্তে যায়।

পরে জুলাই মাসে দ্বিতীয় বারের মতো সংলাপের উদ্যোগ নেয় তুরস্ক। কিন্তু সেটিরও একই পরিণতি হয়।

এদিকে, দুই উদ্যোগ ব্যর্থ হওয়ার পর ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি ডিক্রি জারি করেন— রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নেতৃত্বাধীন প্রশাসনের সঙ্গে কোনো প্রকার আলোচনায় বসবেন না তিনি এবং তার প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

এদিকে যুদ্ধ শুরুর পর থেকে ইউক্রেনকে নিয়মিত অর্থ ও সামরিক সহায়তা দিয়ে আসছিল যুক্তরাষ্ট্র। তবে সম্প্রতি হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, ইউক্রেনকে সহায়তা প্রদান অব্যাহত রাখা আর সম্ভব হচ্ছে না যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে।

সূত্র: ঢাকা পোস্ট
আইএ/ ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩

Back to top button