নীলফামারী

বিপৎসীমার কাছাকাছি তিস্তার পানি

নীলফামারী, ০৩ জুলাই – ক্রমাগত বৃষ্টি ও কিছু অঞ্চলে পাহাড়ি ঢলের কারণে দেশের বিভিন্ন স্থানে নদ-নদীর পানি বাড়ছে। সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। অনেক এলাকায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে। নীলফামারীতে তিস্তার পানি বিপৎসীমার কাছাকাছি ওঠানামা করছে। সোমবার সকালে তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি বিপৎসীমার সাত সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়। বেলা ১২টায় তিন সেন্টিমিটার কমে বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার নিচে নামে। বিকেল ৩টায় আরো পানি কমে বিপৎসীমার ১৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। ওই পয়েন্টে নদীর পানির বিপৎসীমা ৫২.১৫ সেন্টিমিটার।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে ব্যারাজের সবকটি জলকপাট (৪৪টি) খুলে রাখা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও সতর্কাবস্থায় রয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র সূত্র জানায়, উজানের ঢল ও ভারি বর্ষণে রোববার রাত থেকে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করে।

সূত্র জানায়, সোমবার সকাল ৬টায় তিস্তা ব্যারাজ পয়েন্টে নদীর পানি বিপৎসীমার ১০ সেন্টিমিটার, সকাল ৯টায় সাত সেন্টিমিটার, বেলা ১২টায় ১০ সেন্টিমিটার এবং বেলা ৩টায় ১৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়।

ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান বলেন, তিস্তার পানি বৃদ্ধির ফলে নিম্নাঞ্চলে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। বর্তমানে পানি কমলেও এসব এলাকা থেকে পানি নামতে সময় লাগছে।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসফাউদদৌলা বলেন, তিস্তা নদীর পানি কখনো বাড়ছে আবার কখনো কমছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ব্যারাজের সবকটি জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ০৩ জুলাই ২০২৩

Back to top button