জাতীয়

৩ বিভাগে ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস

ঢাকা, ২০ এপ্রিল – গরমে নাভিশ্বাস অবস্থা আজ বৃহস্পতিবারও অব্যাহত থাকবে। আজও তিন বিভাগের দু-একটি স্থানে ঝড়-বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। তাপমাত্রা খুব একটা কমার সম্ভাবনা নেই বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি।

তবে আগামী দু-তিন দিনে ঝড়-বৃষ্টি বাড়ার পূর্বাভাস দিয়েছের আবহাওয়াবিদরা। এখনও দেশের পাঁচ জেলায় তীব্র তাপপ্রবাহ বইছে। এসব জেলার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে।

দেশের আকাশে মেঘের আনাগোনা বেড়েছে। সিলেটে বৃষ্টি হচ্ছে। বুধবার সকাল ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে ১৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

 

গত ৪ এপ্রিল থেকে দেশে তাপপ্রবাহ বইছে। এখন ময়মনসিংহ বিভাগ ছাড়া দেশের অন্যান্য অংশে মৃদু থেকে তীব্র তাপপ্রবাহ বইছে। ঢাকায় কয়েক দিন আগে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপরে উঠলেও এখন অনেকটা কমেছে। কিন্তু এখনও নাগরিক জীবনে স্বস্তি ফেরেনি।

বুধবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল ঈশ্বরদী ও চুয়াডাঙ্গায়। ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাস তুলে ধরে আবহাওয়াবিদ মো. আব্দুল হামিদ মিয়া জানান, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম এবং সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। এসময়ে সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

রাজশাহী, পাবনা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়া জেলার ওপর দিয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। বগুড়া, নওগাঁ, মৌলভীবাজার, রাঙ্গামাটি, চাঁদপুর, খুলনা, সাতক্ষীরা, বরিশাল, পটুয়াখালী ও ভোলা জেলাসহ এবং ঢাকা ও রংপুর বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে বলেও জানান এ আবহাওয়াবিদ।

তিনি আরও জানান, আগামী তিনদিনে বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে।

বৃহস্পতিবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল সিলেটে। ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সূত্র: জাগো নিউজ
আইএ/ ২০ এপ্রিল ২০২৩

Back to top button