আফ্রিকা

উগান্ডায় টিন চুরি করে আটক মন্ত্রী

কাম্পালা, ০৭ এপ্রিল – দরিদ্র-উদ্বাস্তুদের আবাসন প্রকল্পে বরাদ্দ হাজার হাজার সরকারি টিন চুরির অভিযোগে সরকারের একজন মন্ত্রীকে আটক করেছে উগান্ডা পুলিশ। মন্ত্রীর নাম ড. মেরি গোরেত্তি কিতুতু কিমোনো (৬১)।

হাজার হাজার টিন চুরির কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িত কিতুতু বৃহস্পতিবার আদালতে অভিযুক্ত হওয়ার পর তাকে আটক করা হয়। কিতুতুর ওই টিন চুরির ভাগা পেয়েছেন সরকারের অন্তত ১০ জন উচ্চপদস্থ ব্যক্তি।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী রবিনাহ নাব্বাঞ্জাও, উপ-রাষ্ট্রপতি, সংসদীয় স্পিকারসহ আরও কয়েকজন মন্ত্রীও রয়েছেন এই দলে। আটককৃত মন্ত্রী কিতুতুকে আগামী বুধবার পর্যন্ত জেলেই থাকতে হবে। বিবিসি।

উগান্ডার অস্থিতিশীল উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় কারামোজা অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত এই মন্ত্রী ১২ জানুয়ারি স্থানীয়দের আবাসনের জন্য ১৪ হাজার ৫০০টি টিন চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে আবেদন করেন। প্রয়োজনীয়তা ভেবে টিনগুলো তাকে বরাদ্দ দেওয়া হলেও কারামোজাবাসীরা তা পায়নি।

এই অপরাধেই এদিন তাকে আটক করে পুলিশ। চুরি, সরকারি তহবিল ও বরাদ্দ তছরুপের ঘটনা পূর্ব আফ্রিকার এই দেশটিতে বেশ নিয়মিত বিষয় হলেও দুর্নীতির দায়ে মন্ত্রীদের বিচার উগান্ডায় বিরল ঘটনা।

বিবিসি বলছে, অভিযুক্ত মন্ত্রী মেরি গোরেত্তি কিতুতু কিমোনো ছিলেন কারামোজা অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী। টিন চুরির অভিযোগ আনার পর আদালতে তিনি দোষ স্বীকার করেননি, তবে তাকে জামিনও দেননি আদালত। কারামোজা বিষয়ক মন্ত্রী মেরি গোরেত্তির বিরুদ্ধে ‘সরকারি সম্পত্তির ক্ষতি’ এবং ‘প্রতারণার ষড়যন্ত্র’সহ বেশ কয়েকটি অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে বলে রাজধানী কাম্পালার দুর্নীতিবিরোধী আদালতের নথিতে উঠে এসেছে।

আদালতের নথিতে বলা হয়েছে, ১৪ হাজার ৫০০টি টিন ‘তার নিজের সুবিধার ও তৃতীয় পক্ষের সুবিধার জন্য’ সরিয়ে ফেলেছেন কিতুতু। বিবিসি বলছে, অভিযুক্তদের মধ্যে কেউ কেউ দুর্নীতি কেলেঙ্কারির তদন্তকারী সংসদীয় কমিটিকে বলেছেন, ১৪ হাজার ৫০০টি টিন হারিয়ে গেলেও তারা সেগুলো চায়নি। এই ঘটনায় উগান্ডার প্রধানমন্ত্রী ক্ষমা চেয়েছেন এবং অন্য কর্মকর্তাদের টিন ফেরত দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। উগান্ডার স্পিকার অনিতা অমং হাউসকে বলেন, ভাগ হিসাবে তিনি যা পেয়েছেন তা ফেরত দিয়েছেন।

এমনকি সম্প্রতি নিজের ছাগলের গোয়ালের ছাদ থেকে একজন মন্ত্রীকে কিছু টিন খুলতে বাধ্য করা হয়েছে বলেও স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে। উগান্ডার সরকারি মালিকানাধীন নিউ ভিশন পত্রিকার খবরে বলা হয়েছে, ‘প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়’র নাম উল্লেখিত ধাতব টিন বিক্রি করার জন্য পুলিশ চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে কিতুতুর তিনজন ঘনিষ্ঠ আত্মীয়কে গ্রেফতার করেছিল।

এছাড়া গত মাসে একটি সংসদীয় কমিটির সামনে উপস্থিত হয়ে টিন বিতরণের অব্যবস্থাপনার জন্য ক্ষমা চেয়েছিলেন কিতুতু। কেনিয়া এবং দক্ষিণ সুদানের সীমান্তবর্তী একটি প্রত্যন্ত অঞ্চল কারামোজা। গত কয়েক দশক ধরেই ঘন ঘন খরা এবং গবাদিপশু নিয়ে মারাত্মক সংঘর্ষের জন্য পরিচিত অঞ্চলটি যাযাবরদের আবাসস্থল।

সূত্র: যুগান্তর
এম ইউ/০৭ এপ্রিল ২০২৩

Back to top button