জাতীয়

রাজধানীতে জামায়াতের বিক্ষোভ

ঢাকা, ২২ জানুয়ারি – জামায়াত আমির ডা. শফিকুর রহমানকে সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার করে নির্যাতন চালানো হচ্ছে। গণআন্দোলনে ভীত ও গণঅভ্যুত্থান ঠেকাতেই এই নির্যাতন করা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তর সেক্রেটারি ড. মুহাম্মদ রেজাউল করিম।

রোববার (২২ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে জামায়াত আমিরকে কারা নির্যাতনের প্রতিবাদ এবং অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তর আয়োজিত এক বিক্ষোভ পরবর্তী সমাবেশ এসব কথা বলেন তিনি।

বিক্ষোভ মিছিলটি রাজধানীর কাওরান বাজার থেকে শুরু করে আশপাশের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাতিরঝিল মোড়ে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

ড. রেজাউল করিম বলেন, সরকার নিজেদের অবৈধ ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করার জন্য নতুন করে তামাশা ও ভাঁওতাবাজির নির্বাচন করার জন্য দিবাস্বপ্নে বিভোর। সে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই তারা নতুন করে বিরোধী দলের ওপর নিপীড়ন শুরু করেছে।

স্বাধীনভাবে মতপ্রকাশ ও রাজপথে সভা-সভাবেশ প্রত্যেকের নাগরিক সাংবিধানিক অধিকার হলেও সরকার পুলিশ বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে জনগণকে সে অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে। সরকার বিরোধী শিবিরকে নেতৃত্বশূন্য করে রাজনৈতিক উচ্চাভিলাষ চরিতার্থ করার জন্যই সরকার জামায়াত আমির ডা. শফিকুর রহমানসহ জাতীয় নেতাদের গ্রেপ্তার করে জুলুম-নির্যাতন চালাচ্ছে।

তিনি অপরাজনীতি ও অবৈধ ক্ষমতালিপ্সা পরিহার করে জামায়াত আমির, আল্লামা সাঈদী, মাওলানা শামসুল ইসলাম, অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ কারারুদ্ধ সব আলেম, রাজনৈতিক নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানান।

সমাবেশে কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারি সেক্রেটারি নাজিম উদ্দিন মোল্লা, ঢাকা মহানগরী উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য মু. আতাউর রহমান সরকার, ঢাকা মহানগরী উত্তরের মজলিসে শূরা সদস্য অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম খলিল, অ্যাডভোকেট জিল্লুর রহমান, কুতুব উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার নোমান আহমেদী, ইউসুফ আলী মোল্লা, ছাত্রনেতা সালাহউদ্দিনসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র: বাংলাদেশ জার্নাল
আইএ/ ২২ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button