জাতীয়

আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে তুরাগ তীরে মুসল্লিদের ঢল

গাজীপুর, ২২ জানুয়ারি – দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে আজ রবিবার (২২ জানুয়ারি) শেষ হচ্ছে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জমায়েত ৫৬তম বিশ্ব ইজতেমা। আজ ফজরের নামাজের পর বয়ান শুরু করেন ভারতের মাওলানা মুরসালিন। তার বয়ান তরজমা করেন বাংলাদেশের মাওলানা আশরাফ আলী। সকাল ৯টা থেকে মাওলানা মোশারফ হোসেন তালিম করছেন। সাড়ে ৯টায় ইজতেমার শীর্ষ মুরুব্বি দিল্লির মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলাভীর বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী হেদায়েতি বয়ান শুরু করেছেন।

দুই পর্বের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হয় গত ১৩ জানুয়ারি। ওই পর্বে মাওলানা যোবায়েরের অনুসারী দেশি-বিদেশি মুসল্লিরা অংশ নেন। ১৫ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয় প্রথম পর্ব। প্রথম পর্ব সম্পন্ন হওয়ার পর চার দিন বিরতি দিয়ে ২০ জানুয়ারি থেকে শুরু হয় দ্বিতীয় পর্ব। এবারও বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাত ভারতের মাওলানা সাদ কান্ধলভীকে ছাড়াই অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বিতর্ক ওঠার পর মাওলানা সাদ এবারও ইজতেমায় অংশ নিতে বাংলাদেশে আসেননি। তবে তার তিন ছেলে ও জামাতা জামায়াত নিয়ে ইজতেমা ময়দানে এসেছেন।

শনিবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে বিশ্বের ৬০টি দেশের প্রায় ৬ হাজার জন বিদেশি মুসল্লি অংশ নেন। তাছাড়া এ পর্বে দেশের ৬৪টি জেলার কয়েক লাখ মুসল্লি ইজতেমায় অংশ নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন গাজীপুরে জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমান। জানা গেছে, আজকের আখেরি মোনাজাতে মন্ত্রিপরিষদের একাধিক সদস্য, সংসদ সদস্য, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, সরকারি-বেসরকারিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও বিভাগের কর্মকর্তারা অংশ নেবেন।

বিশ্ব ইজতেমার মিডিয়া সমন্বয়কারী সায়েম জানান, হেদায়েতি বয়ান শেষে হলে বেলা সাড়ে ১১টা অথবা সাড়ে ১২টার দিকে দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন দিল্লির মাওলানা সাদ’র বড় ছেলে মাওলানা ইউসুফ বিন সাদ কান্ধলভী ।

আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে ফজরের ওয়াক্ত থেকেই টঙ্গী ও ঢাকার আশপাশের এলাকা থেকে মুসল্লিরা ইজতেমা ময়দানে আসতে শুরু করেছেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মুসল্লিদের স্রোত বাড়তে থাকে। সকালে বিভিন্ন সড়ক ঘুরে দেখা যায়, দলে দলে টঙ্গীর তুরাগপাড়ের ইজতেমা মাঠে ছুটে আসছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

 

ইজতেমার শেষ দফায় মাওলানা সা’দ অনুসারী দেশের ৬৪টি জেলার মুসল্লিরা ৮৫ খিত্তায় অবস্থান নিয়েছেন। এই ধাপের ইজতেমায় পবিত্র কোরআন-হাদিসের আলোকে বয়ানের মধ্য দিয়ে গত দুই দিন অতিবাহিত হয়। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত অবিরাম চলে বিভিন্ন ভাষায় বয়ান। ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ঈমান, আখলাক ও দ্বীনের বিভিন্ন বয়ান শোনেন।

আখেরি মোনাজাতের জন্য রবিবার (২২ জানুয়ারি) আশপাশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, কলকারখানাসহ বিভিন্ন অফিস ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। যেসব প্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করেনি ওইসব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের মোনাজাতে অংশ নিতে ব্যবস্থাপনা কমিটির পক্ষ থেকে কোনও বাধা নেই।

ভোগড়া বাইপাস থেকে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর পর্যন্ত সাধারণ যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় মুসল্লিরা হেঁটে ইজতেমার ময়দানে আসছেন। আখেরি মোনাজাতের আগ পর্যন্ত মুসল্লিদের আগমন অব্যাহত থাকবে।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন
আইএ/ ২২ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button