কুড়িগ্রাম

পদ পেয়েই প্রধান শিক্ষককে পেটালেন আ.লীগ নেতা

কুড়িগ্রাম, ২০ জানুয়ারি – কুড়িগ্রামের রৌমারীতে বিদ্যালয়ের নিয়োগ-সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রধান শিক্ষককে পিটিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান রোকন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে রৌমারী সি জি জামান উচ্চবিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক।

এ ঘটনায় গতকাল রাত ৮টায় দুজনের নাম উল্লেখ করে রৌমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই প্রধান শিক্ষক।

ভুক্তভোগী উপজেলার ফুলকারচর নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবী লিখিত অভিযোগে বলেছেন, বিদ্যালয়ের নিয়োগ-সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা রোকনুজ্জামান রোকন ও আসাদুল ইসলামের সঙ্গে বিরোধ চলে আসছিল। ঘটনার দিন তিনি ও তার বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী আব্দুর রশিদকে সঙ্গে নিয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসে যান। বেলা ১টার দিকে শিক্ষা অফিসে কাজ শেষে উপজেলা চত্বরে এলে রোকনুজ্জামান ও তার লোকজন তাকে উঠিয়ে নিয়ে পলি পরিবহন কাউন্টারে আটকে রাখেন।

পরে আওয়ামী লীগ নেতা রোকনের মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে রৌমারী সি জি জামান উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু হোরায়রার বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে নেন। আবু হোরায়রা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সেখানে রোকনুজ্জামান শিক্ষক নুরুন্নবীকে এলোপাতাড়ি চড়থাপ্পড় ও কিল-ঘুষি মারতে থাকেন। একপর্যায়ে আবু হোরায়রা চেয়ার থেকে উঠে রোকনকে অফিস কক্ষ থেকে বের করে দেন।

পরে ওই বিদ্যালয়ে অন্য শিক্ষক ও উপস্থিত লোকজন তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এ বিষয়ে দুজনের নাম উল্লেখ করে রৌমারী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন শিক্ষক নুরুন্নবী।

প্রধান শিক্ষককে পেটানোর কথা স্বীকার করেছেন রৌমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক রোকনুজ্জামান রোকন। তিনি বলেন, ‘নিয়োগ-সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে ওই প্রধান শিক্ষক আমাকে দালাল বলেছেন। এ সময় আমি নিজেকে সংযত রাখতে না পেরে তাকে দুটো থাপ্পড় মেরেছি।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রৌমারী সি জি জামান উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু হোরায়রা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতা রোকনকে আমি ডাকিনি। কয়েক ব্যক্তিসহ তিনি প্রধান শিক্ষক নুরুন্নবীকে নিয়ে আমার অফিস কক্ষে ঢোকেন। এ সময় ওই প্রধান শিক্ষক নিয়োগ-সংক্রান্ত বিষয়ে বিবরণ দিতে গেলে রোকনুজ্জামান তাকে মারধর করেন। বিষয়টি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিকে জানানো হয়েছে। শিগগিরই তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

অভিযোগের বিষয়ে রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রূপ কুমার সরকার বলেন, ‘প্রধান শিক্ষককে পেটানোর ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সূত্র: আমাদের সময়
আইএ/ ২০ জানুয়ারি ২০২৩

Back to top button