পুষ্টি

কমলার খোসার নানা গুণ

কমলার যেমন রূপ তেমনি গুণও। কমলার কোয়া ও খোসা দুটোই পুষ্টিতে ভরপুর। তাই নিয়ম করে প্রতিদিন কমলা খাওয়া দরকার। শীতকালে বাজারে কমলার আমদানি বাড়ে। দামও কমে চলে আসে নাগালের মধ্যে। তাই পুষ্টি বিশেষজ্ঞরা এই সময়ে বেশি বেশি কমলা খাওয়ার পরামর্শ দেন। কমলাকে বলা হয় শতগুণে সমৃদ্ধ ফল।

কমলার খোসার নানান রকমের উপকারিতা রয়েছে, আসুন জেনে নিই সেগুলো:

খাবারে লেবুর খোসা- বাড়িতে শীতের দিনে কেক বা বিস্কুট যদি তৈরি করেন, তাহলে কমলার খোসা শুকিয়ে মিহি করে বেঁটে নিন। তা কেক বা বিস্কুট বানানোর জন্য প্রয়োজন। এটি সালাদ বানানোর কাজে লাগাতে পারেন, ফ্লেভারের জন্য। এ ছাড়াও কমলার খোসা দিয়ে জ্যাম তৈরি করে ফেলতে পারেন।

মুখের ব্রণ সারাতে- একটি আস্ত কমলার খোসা পানি দিয়ে ফুটিয়ে নিন। পানি ঠাণ্ডা করে তা মুখে মেখে নিন। এটি বেশ কয়েকদিন ধরে ফ্রিজে রেখে প্রতিদিন ঠাণ্ডা করে মুখে লাগাতে পারেন। কয়েকদিন পর থেকে ত্বকের উজ্বলতা হবে দেখার মতো।

দাঁতের হলুদ ভাব কাটাতে- কমলার খোসায় ছিটিয়ে নিন সামান্য পানি। এরপর সেই পানি মাখা খোসা দাঁতে ঘষে নিন। এতে দাঁতের হলদেভাব নিমেষে চলে যাবে। চাইলে খোসা বেটে তা পেস্টে লাগিয়েও ব্যবহার করতে পারেন।

ঘরের গন্ধ দূর করতে- একটি পাত্রে পানি নিয়ে তাতে সামান্য দারচিনি, কমলার খোসা দিয়ে কয়েক মিনিট ফুটিয়ে নিন। এই মিশ্রণের গন্ধে ঘরে থাকা শীতের স্যাঁতস্যাঁতেভাবের গন্ধ চলে যাবে।

ত্বকের যত্নে- কমলার খোসা ত্বকের যত্নে খুবই উপকারী। ত্বকে তেলের ভারসাম্য রক্ষায় কমলার খোসা বেশ উপকারী। কমলার খোসা ত্বকের যত্নে ব্যবহার করতে চাইলে, প্রথমে তা শুকিয়ে গুঁড়া করে নিন। তারপর মুসুরের ডালের সঙ্গে তা বেটে নিয়ে মুখে লাগাতে হবে। এতে মুখের দাগ চলে যায়।

আইএ

Back to top button